ঢাকা ০২:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

৮০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৮০০ গ্রাম ভয়ঙ্কর মাদক আইস (ক্রিস্টাল ম্যাথ) উদ্ধারসহ একজন মাদক কারবারীকে কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাহপাড়া এলাকা থেকে র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩৯:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মে ২০২৪ ৬১ বার পড়া হয়েছে

 

৮০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৮০০ গ্রাম ভয়ঙ্কর মাদক আইস (ক্রিস্টাল ম্যাথ) উদ্ধারসহ একজন মাদক কারবারীকে কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাহপাড়া এলাকা থেকে র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার

১। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়নের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাংলাদেশে অপরাধ নির্মূলে প্রতিনিয়ত অবদান রেখে চলেছে। ‘‘বাংলাদেশ আমার অহংকার’’ এই স্লোগান নিয়ে র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার এর দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় হত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ, জঙ্গী দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, জলদস্যু, ডাকাত, চুরি-ছিনতাই, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ও মাদকসহ দেশে বিরাজমান নানাবিধ অপরাধ নির্মূলে বিশেষ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। এ সকল অপরাধ দমনে প্রতিনিয়ত অত্যন্ত অগ্রণী ভূমিকা পালন এবং অপারেশনাল কার্যক্রম পরিচালনাসহ নিরলসভাবে কাজ করছে।

২। বর্তমান সময়ে সর্বনাশা মাদকের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত হলো ক্রিস্টাল মেথ বা আইস। ক্রিস্টালমেথ বা আইস নামক এই মাদকের নেশার প্রচলন বৃদ্ধি পাওয়ায় মাদক কারবারীরা পার্শ্ববর্তী দেশ হতে বিভিন্ন কৌশলে আইসের চালান নিয়ে আসছে। এছাড়া কক্সবাজার জেলার মাদক ব্যবসায়ীরা তরুন প্রজন্মকে টার্গেট করতঃ ভয়ংকর মাদকদ্রব্য আইস বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে দিচ্ছে বলে র‌্যাবের আভিযানিক দল বিভিন্ন সূত্রে জানতে পারে। এ প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৫ দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় গোয়েন্দা তৎপরতা ও নজরদারী বৃদ্ধিসহ অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে।

৩। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সূত্রে র‌্যাব জানতে পারে, আইস (ক্রিস্টাল মেথ) একটি চালানসহ কতিপয় মাদক কারবারী কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাহপাড়া সামনে ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ০৩ মে ২০২৪ তারিখ ০০.৩০ ঘটিকায় সিপিএসসি, র‌্যাব-১৫ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাপাড়া পৌঁছালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে একজন ব্যক্তি তার হাতে থাকা একটি শপিং ব্যাগ নিয়ে কৌশলে পালানোর চেষ্টাকালে মাদক কারবারী মোঃ ছবি আলম (৪০), পিতা-মৃত রশিদ আহমদ, মাতা-মৃত ফাতেম বেগম, সাং-পূর্ব দ্বিপফতেখাঁরকুল, ১নং ওয়ার্ড, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন, থানা-রামু, জেলা-কক্সবাজার’কে আটক করতে সক্ষম হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তার নাম ঠিকানা প্রকাশ করে এবং উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত ব্যক্তির দেহ ও সাথে থাকা শপিং ব্যাগ তল্লাশী করে তার হেফাজত হতে ৮০০ গ্রাম আইস (ক্রিস্টাল মেথ) উদ্ধার করা হয়। কথিত আছে উদ্ধারকৃত অবৈধ মাদক আইস (ক্রিস্টাল মেথ) এর আনুমানিক মূল্য প্রায় আশি লক্ষ টাকা।

৪। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত ছবি আলম পাশ্ববর্তী দেশের যোগসাজসে দেশে অবৈধ মাদক আইস চোরাকারবারির সাথে জড়িত। মূলত গ্রেফতারকৃত মোঃ ছবি আলম (৪০) এই চক্রের মূল হোতা। তার নেতৃত্বে চক্রটির বেশ কয়েকজন সদস্য কক্সবাজার ও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ক্রিস্টাল মেথ বা আইসসহ অন্যান্য ভয়ংকর মাদক চোরাচালানের সাথে জড়িত। মোঃ ছবি আলমের নেতৃত্বে মাদক গ্রহণ করে অবৈধ পথে ঘুমধুম সীমান্ত হয়ে মাদকগুলো বর্ডারের নিকটবর্তী গোপন স্থানে জমা করে। সেখান থেকে দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চল/নৌপথে বিভিন্ন কৌশলে ক্রিস্টাল আইসসহ অন্যান্য মাদক কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখতো। সুবিধাজনক সময়ে চক্রটি মাদকের চালানগুলো মোঃ ছবি আলম (৪০) বিভিন্ন উপায়ে শরীরের মধ্যে বেধে, গাড়িতে সেট করে এবং যোগান হিসেবে রাজধানীমুখী বিভিন্ন পরিবহনের মাধ্যমে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রেরণ করতো। আইসের এই চালানটি কয়েক ভাগে ভাগ করে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে তাদের এজেন্টদের নিকট পৌঁছে দেয়ার পরিকল্পনা ছিল মর্মে জানায়।

৫। উদ্ধারকৃত মাদক আইস’সহ গ্রেফতারকৃত মাদক কারবারীর বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এজাহার দাখিল করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

৮০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৮০০ গ্রাম ভয়ঙ্কর মাদক আইস (ক্রিস্টাল ম্যাথ) উদ্ধারসহ একজন মাদক কারবারীকে কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাহপাড়া এলাকা থেকে র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার

আপডেট সময় : ১২:৩৯:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মে ২০২৪

 

৮০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৮০০ গ্রাম ভয়ঙ্কর মাদক আইস (ক্রিস্টাল ম্যাথ) উদ্ধারসহ একজন মাদক কারবারীকে কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাহপাড়া এলাকা থেকে র‌্যাব-১৫ কর্তৃক গ্রেফতার

১। র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়নের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাংলাদেশে অপরাধ নির্মূলে প্রতিনিয়ত অবদান রেখে চলেছে। ‘‘বাংলাদেশ আমার অহংকার’’ এই স্লোগান নিয়ে র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার এর দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় হত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ, জঙ্গী দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, জলদস্যু, ডাকাত, চুরি-ছিনতাই, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ও মাদকসহ দেশে বিরাজমান নানাবিধ অপরাধ নির্মূলে বিশেষ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। এ সকল অপরাধ দমনে প্রতিনিয়ত অত্যন্ত অগ্রণী ভূমিকা পালন এবং অপারেশনাল কার্যক্রম পরিচালনাসহ নিরলসভাবে কাজ করছে।

২। বর্তমান সময়ে সর্বনাশা মাদকের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত হলো ক্রিস্টাল মেথ বা আইস। ক্রিস্টালমেথ বা আইস নামক এই মাদকের নেশার প্রচলন বৃদ্ধি পাওয়ায় মাদক কারবারীরা পার্শ্ববর্তী দেশ হতে বিভিন্ন কৌশলে আইসের চালান নিয়ে আসছে। এছাড়া কক্সবাজার জেলার মাদক ব্যবসায়ীরা তরুন প্রজন্মকে টার্গেট করতঃ ভয়ংকর মাদকদ্রব্য আইস বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে দিচ্ছে বলে র‌্যাবের আভিযানিক দল বিভিন্ন সূত্রে জানতে পারে। এ প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৫ দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় গোয়েন্দা তৎপরতা ও নজরদারী বৃদ্ধিসহ অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে।

৩। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সূত্রে র‌্যাব জানতে পারে, আইস (ক্রিস্টাল মেথ) একটি চালানসহ কতিপয় মাদক কারবারী কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাহপাড়া সামনে ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ০৩ মে ২০২৪ তারিখ ০০.৩০ ঘটিকায় সিপিএসসি, র‌্যাব-১৫ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল কক্সবাজার সদর থানাধীন পূর্ব মুক্তারকুল দরগাপাড়া পৌঁছালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে একজন ব্যক্তি তার হাতে থাকা একটি শপিং ব্যাগ নিয়ে কৌশলে পালানোর চেষ্টাকালে মাদক কারবারী মোঃ ছবি আলম (৪০), পিতা-মৃত রশিদ আহমদ, মাতা-মৃত ফাতেম বেগম, সাং-পূর্ব দ্বিপফতেখাঁরকুল, ১নং ওয়ার্ড, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন, থানা-রামু, জেলা-কক্সবাজার’কে আটক করতে সক্ষম হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তার নাম ঠিকানা প্রকাশ করে এবং উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত ব্যক্তির দেহ ও সাথে থাকা শপিং ব্যাগ তল্লাশী করে তার হেফাজত হতে ৮০০ গ্রাম আইস (ক্রিস্টাল মেথ) উদ্ধার করা হয়। কথিত আছে উদ্ধারকৃত অবৈধ মাদক আইস (ক্রিস্টাল মেথ) এর আনুমানিক মূল্য প্রায় আশি লক্ষ টাকা।

৪। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত ছবি আলম পাশ্ববর্তী দেশের যোগসাজসে দেশে অবৈধ মাদক আইস চোরাকারবারির সাথে জড়িত। মূলত গ্রেফতারকৃত মোঃ ছবি আলম (৪০) এই চক্রের মূল হোতা। তার নেতৃত্বে চক্রটির বেশ কয়েকজন সদস্য কক্সবাজার ও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ক্রিস্টাল মেথ বা আইসসহ অন্যান্য ভয়ংকর মাদক চোরাচালানের সাথে জড়িত। মোঃ ছবি আলমের নেতৃত্বে মাদক গ্রহণ করে অবৈধ পথে ঘুমধুম সীমান্ত হয়ে মাদকগুলো বর্ডারের নিকটবর্তী গোপন স্থানে জমা করে। সেখান থেকে দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চল/নৌপথে বিভিন্ন কৌশলে ক্রিস্টাল আইসসহ অন্যান্য মাদক কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখতো। সুবিধাজনক সময়ে চক্রটি মাদকের চালানগুলো মোঃ ছবি আলম (৪০) বিভিন্ন উপায়ে শরীরের মধ্যে বেধে, গাড়িতে সেট করে এবং যোগান হিসেবে রাজধানীমুখী বিভিন্ন পরিবহনের মাধ্যমে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রেরণ করতো। আইসের এই চালানটি কয়েক ভাগে ভাগ করে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে তাদের এজেন্টদের নিকট পৌঁছে দেয়ার পরিকল্পনা ছিল মর্মে জানায়।

৫। উদ্ধারকৃত মাদক আইস’সহ গ্রেফতারকৃত মাদক কারবারীর বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এজাহার দাখিল করা হয়েছে।