ঢাকা ০১:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

স্রোতে গা না ভাসিয়ে বাবরের পাশে দাঁড়ালেন ইউসুফ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:১১:৪২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২০২৩ ৫৯ বার পড়া হয়েছে

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের টানা তিন হার নিয়ে বাবর আজমদের তীব্র সমালোচনা করছেন দেশটির সাবেক ক্রিকেটাররা। সমালোচনার মাত্রা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) গতকাল বিবৃতি দিয়ে সবার সমর্থন কামনা করেছেন।
তবে মোহাম্মদ ইউসুফ সমালোচনার স্রোতে গা না ভাসিয়ে হেঁটেছেন অন্য পথে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা এক ভিডিওতে তিনি সবাইকে বাবর আজম ও পাকিস্তান দলের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করেছেন। এক্সে এক ভিডিও পোস্ট করে সাবেক ব্যাটসম্যান ইউসুফ লিখেছেন, ‘আবারও একটা ভিডিও বানানোর দরকার পড়ল। কারণ, অনেক মিডিয়ায় বাবরের অধিনায়কত্ব নিয়ে কথা হচ্ছে…এটা করা উচিত, ওটা করা উচিত, কত কিছু। হতে পারে তারা সত্যি বলছে। তবে আমি বলতে চাই, বিশ্বকাপ তো চলছে। এত তাড়াহুড়ো কেন?’

২০১৯ বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে উঠতে পারেনি পাকিস্তান। বিশ্বকাপ শেষ করেছিল পয়েন্ট তালিকার পাঁচ নম্বরে থেকে। ওই আসরে তাদের শুরুটাও ভালো ছিল না। প্রথম পাঁচ ম্যাচের মধ্যে তারা জিতেছিল মাত্র একটি। ইউসুফের দাবি, তখন পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের তেমন কোনো সমালোচনা হয়নি, ‘২০১৯ বিশ্বকাপে আমরা ৫-৬ ম্যাচ খেলার পর পয়েন্ট তালিকার নয় নম্বরে ছিলাম। ওই সময়ে কোনো চ্যানেলে এই কথা হয়নি যে অধিনায়ককে সরিয়ে দেও। তাহলে আজ কেন এত আলোচনা? কেন, সেটাই আমি বুঝতে পারছি না।’
তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘বাবর আমাদের সেরা ব্যাটসম্যান। আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর। পুরো দুনিয়া মানে। আর আমরা আমাদের সেরা ক্রিকেটারকে অধিনায়কত্ব ভালো করছে না, এই কথা বারবার বলে কেন চাপে রাখছি? সবার বাবরের পাশে দাঁড়ানো উচিত। বিশ্বকাপ শেষ হোক। তাড়াহুড়ো নেই তো। সাবেক ক্রিকেটারদের অনুরোধ করছি, হতে পারে আপনারা ঠিক বলছেন। কিন্তু এমন কোনো কথা না বলি, যাতে চাপে থাকা দল আরও চাপে পড়ে যায়।’
এবারের বিশ্বকাপে শুরুটা দারুণ হয়েছিল পাকিস্তানের। নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৮১ রানে ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬ উইকেটে জিতেছিল পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কার দেওয়া ৩৪৫ রানের লক্ষ্য ছুঁয়ে বিশ্বকাপ ইতিহাসেরই সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড গড়েছিল বাবর আজমের দল।

কিন্তু শুরুর ছন্দটা আর ধরে রাখতে পারেনি পাকিস্তান। তৃতীয় ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে বাজেভাবে হেরে যায়। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েও পেরে ওঠেনি। আর আফগানিস্তানের কাছে অপ্রত্যাশিত হারটা তো পাকিস্তানের অহমেই বড় আঘাত দিয়েছে। টানা তিন হারে বাবর-রিজওয়ানদের সেমিফাইনালে ওঠার সমীকরণ কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরপর পাকিস্তান দলকে রীতিমতো ধুয়ে দিচ্ছেন সাবেকরা।

ম্যাচ হারার পর পাকিস্তান কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরাম ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে কথা বলতে গিয়ে মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি। ‘এ স্পোর্টস’–এর অনুষ্ঠান ‘দ্য প্যাভিলিয়নে’ তিনি বলেছিলেন, ‘খেলোয়াড়দের ফিল্ডিং ও ফিটনেস দেখুন। আমরা ৩ সপ্তাহ ধরে বলছি, এই খেলোয়াড়েরা গত দুই বছরের মধ্যে কোনো ফিটনেস পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়নি। এখন আমি নাম ধরে বললে তারা অখুশি হবে। দেখে তো মনে হয়, ওরা প্রতিদিন আট কেজি করে খাসির গোশত খায়। তাহলে কি (ফিটনেস) পরীক্ষাটা হওয়া উচিত নয়?’

ওয়াকার ইউনিস আফগানদের বিপক্ষে পাকিস্তান দলের খেলাকে আবর্জনা বলেছেন। আরেক সাবেক ফাস্ট বোলার আকিব জাভেদ বাবরকে সরিয়ে শাহিন আফ্রিদিকে নেতৃত্ব দেওয়ার দাবি তুলেছেন।

কঠিন সময় পার করতে থাকা বাবররা আজ নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

স্রোতে গা না ভাসিয়ে বাবরের পাশে দাঁড়ালেন ইউসুফ

আপডেট সময় : ০১:১১:৪২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২০২৩

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের টানা তিন হার নিয়ে বাবর আজমদের তীব্র সমালোচনা করছেন দেশটির সাবেক ক্রিকেটাররা। সমালোচনার মাত্রা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) গতকাল বিবৃতি দিয়ে সবার সমর্থন কামনা করেছেন।
তবে মোহাম্মদ ইউসুফ সমালোচনার স্রোতে গা না ভাসিয়ে হেঁটেছেন অন্য পথে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা এক ভিডিওতে তিনি সবাইকে বাবর আজম ও পাকিস্তান দলের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করেছেন। এক্সে এক ভিডিও পোস্ট করে সাবেক ব্যাটসম্যান ইউসুফ লিখেছেন, ‘আবারও একটা ভিডিও বানানোর দরকার পড়ল। কারণ, অনেক মিডিয়ায় বাবরের অধিনায়কত্ব নিয়ে কথা হচ্ছে…এটা করা উচিত, ওটা করা উচিত, কত কিছু। হতে পারে তারা সত্যি বলছে। তবে আমি বলতে চাই, বিশ্বকাপ তো চলছে। এত তাড়াহুড়ো কেন?’

২০১৯ বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে উঠতে পারেনি পাকিস্তান। বিশ্বকাপ শেষ করেছিল পয়েন্ট তালিকার পাঁচ নম্বরে থেকে। ওই আসরে তাদের শুরুটাও ভালো ছিল না। প্রথম পাঁচ ম্যাচের মধ্যে তারা জিতেছিল মাত্র একটি। ইউসুফের দাবি, তখন পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের তেমন কোনো সমালোচনা হয়নি, ‘২০১৯ বিশ্বকাপে আমরা ৫-৬ ম্যাচ খেলার পর পয়েন্ট তালিকার নয় নম্বরে ছিলাম। ওই সময়ে কোনো চ্যানেলে এই কথা হয়নি যে অধিনায়ককে সরিয়ে দেও। তাহলে আজ কেন এত আলোচনা? কেন, সেটাই আমি বুঝতে পারছি না।’
তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘বাবর আমাদের সেরা ব্যাটসম্যান। আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর। পুরো দুনিয়া মানে। আর আমরা আমাদের সেরা ক্রিকেটারকে অধিনায়কত্ব ভালো করছে না, এই কথা বারবার বলে কেন চাপে রাখছি? সবার বাবরের পাশে দাঁড়ানো উচিত। বিশ্বকাপ শেষ হোক। তাড়াহুড়ো নেই তো। সাবেক ক্রিকেটারদের অনুরোধ করছি, হতে পারে আপনারা ঠিক বলছেন। কিন্তু এমন কোনো কথা না বলি, যাতে চাপে থাকা দল আরও চাপে পড়ে যায়।’
এবারের বিশ্বকাপে শুরুটা দারুণ হয়েছিল পাকিস্তানের। নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৮১ রানে ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬ উইকেটে জিতেছিল পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কার দেওয়া ৩৪৫ রানের লক্ষ্য ছুঁয়ে বিশ্বকাপ ইতিহাসেরই সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড গড়েছিল বাবর আজমের দল।

কিন্তু শুরুর ছন্দটা আর ধরে রাখতে পারেনি পাকিস্তান। তৃতীয় ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে বাজেভাবে হেরে যায়। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েও পেরে ওঠেনি। আর আফগানিস্তানের কাছে অপ্রত্যাশিত হারটা তো পাকিস্তানের অহমেই বড় আঘাত দিয়েছে। টানা তিন হারে বাবর-রিজওয়ানদের সেমিফাইনালে ওঠার সমীকরণ কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরপর পাকিস্তান দলকে রীতিমতো ধুয়ে দিচ্ছেন সাবেকরা।

ম্যাচ হারার পর পাকিস্তান কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরাম ক্রিকেটারদের ফিটনেস নিয়ে কথা বলতে গিয়ে মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি। ‘এ স্পোর্টস’–এর অনুষ্ঠান ‘দ্য প্যাভিলিয়নে’ তিনি বলেছিলেন, ‘খেলোয়াড়দের ফিল্ডিং ও ফিটনেস দেখুন। আমরা ৩ সপ্তাহ ধরে বলছি, এই খেলোয়াড়েরা গত দুই বছরের মধ্যে কোনো ফিটনেস পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়নি। এখন আমি নাম ধরে বললে তারা অখুশি হবে। দেখে তো মনে হয়, ওরা প্রতিদিন আট কেজি করে খাসির গোশত খায়। তাহলে কি (ফিটনেস) পরীক্ষাটা হওয়া উচিত নয়?’

ওয়াকার ইউনিস আফগানদের বিপক্ষে পাকিস্তান দলের খেলাকে আবর্জনা বলেছেন। আরেক সাবেক ফাস্ট বোলার আকিব জাভেদ বাবরকে সরিয়ে শাহিন আফ্রিদিকে নেতৃত্ব দেওয়ার দাবি তুলেছেন।

কঠিন সময় পার করতে থাকা বাবররা আজ নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে।