ঢাকা ১১:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

যমুনা নদীর ভাঙনরোধে ১০ কোটি ডলার দেবে বিশ্বব্যাংক

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫২:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ৬৬ বার পড়া হয়েছে

যমুনা নদীর তীর রক্ষা, নদীর নাব্যতা বৃদ্ধি ও নদীতীরবর্তী মানুষের জীবন–জীবিকা রক্ষায় বাংলাদেশকে ১০ কোটি ২০ লাখ ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। ডলারের বর্তমান বিনিময় মূল্য ১০৯ টাকা ৫০ পয়সা ধরে হিসাব করলে বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১ হাজার ১১৭ কোটি টাকা। আজ বুধবার বিশ্বব্যাংক এ ঋণ অনুমোদন করেছে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি।

বিশ্বব্যাংক জানিয়েছে, যমুনা নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা প্রকল্পে এ অর্থসহায়তা দেবে সংস্থাটি। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে তাতে যমুনা নদীর নাব্যতা বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে বছরজুড়ে বড় জাহাজ চলাচল করতে পারবে। সেই সঙ্গে অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন পুনরুজ্জীবিত হবে, যা আঞ্চলিক যোগাযোগ ও বাণিজ্যে নতুন গতি সঞ্চার করবে। প্রকল্পটির সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রায় আড়াই হেক্টর জমি নদীভাঙন ও বন্যা থেকে রক্ষা পাবে।

যমুনা নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা প্রকল্পে অর্থায়ন বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশের প্রধান আবদৌলায়ে সেক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, যমুনা নদী বিশ্বের বৃহত্তম ও গতিশীল নদীগুলোর একটি। এ নদীকে ঘিরে লক্ষাধিক মানুষের জীবন-জীবিকা আবর্তিত হয়। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে নদীভাঙনের কবলে পড়ে প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষ স্থানচ্যুত হয়। তাতে তারা দারিদ্র্যতার কবলে পড়েন। তাই যমুনা নদীর টেকসই ও জলবায়ু সহনশীল ব্যবস্থাপনা দেশ ও দেশের মানুষের জন্য অর্থনৈতিক সুবিধা বয়ে আনবে।
বিশ্বব্যাংক বলছে, এ ধরনের প্রকল্প বাংলাদেশে এটিই প্রথম। প্রকল্পটি ফুলছড়ি, গাইবান্ধা ও কালিহাতী এলাকায় বাস্তবায়িত হবে। প্রকল্পটির মাধ্যমে উপকৃত হবে এক লাখ মানুষ। পাশাপাশি নদীপথে যাতায়াতে আগ্রহী মানুষকে নিরাপদ ও সাশ্রয়ী পরিবহনের সুযোগ তৈরি করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

যমুনা নদীর ভাঙনরোধে ১০ কোটি ডলার দেবে বিশ্বব্যাংক

আপডেট সময় : ০৩:৫২:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩

যমুনা নদীর তীর রক্ষা, নদীর নাব্যতা বৃদ্ধি ও নদীতীরবর্তী মানুষের জীবন–জীবিকা রক্ষায় বাংলাদেশকে ১০ কোটি ২০ লাখ ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। ডলারের বর্তমান বিনিময় মূল্য ১০৯ টাকা ৫০ পয়সা ধরে হিসাব করলে বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১ হাজার ১১৭ কোটি টাকা। আজ বুধবার বিশ্বব্যাংক এ ঋণ অনুমোদন করেছে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি।

বিশ্বব্যাংক জানিয়েছে, যমুনা নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা প্রকল্পে এ অর্থসহায়তা দেবে সংস্থাটি। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে তাতে যমুনা নদীর নাব্যতা বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে বছরজুড়ে বড় জাহাজ চলাচল করতে পারবে। সেই সঙ্গে অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন পুনরুজ্জীবিত হবে, যা আঞ্চলিক যোগাযোগ ও বাণিজ্যে নতুন গতি সঞ্চার করবে। প্রকল্পটির সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রায় আড়াই হেক্টর জমি নদীভাঙন ও বন্যা থেকে রক্ষা পাবে।

যমুনা নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা প্রকল্পে অর্থায়ন বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশের প্রধান আবদৌলায়ে সেক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, যমুনা নদী বিশ্বের বৃহত্তম ও গতিশীল নদীগুলোর একটি। এ নদীকে ঘিরে লক্ষাধিক মানুষের জীবন-জীবিকা আবর্তিত হয়। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে নদীভাঙনের কবলে পড়ে প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষ স্থানচ্যুত হয়। তাতে তারা দারিদ্র্যতার কবলে পড়েন। তাই যমুনা নদীর টেকসই ও জলবায়ু সহনশীল ব্যবস্থাপনা দেশ ও দেশের মানুষের জন্য অর্থনৈতিক সুবিধা বয়ে আনবে।
বিশ্বব্যাংক বলছে, এ ধরনের প্রকল্প বাংলাদেশে এটিই প্রথম। প্রকল্পটি ফুলছড়ি, গাইবান্ধা ও কালিহাতী এলাকায় বাস্তবায়িত হবে। প্রকল্পটির মাধ্যমে উপকৃত হবে এক লাখ মানুষ। পাশাপাশি নদীপথে যাতায়াতে আগ্রহী মানুষকে নিরাপদ ও সাশ্রয়ী পরিবহনের সুযোগ তৈরি করবে।