ঢাকা ০৭:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

মানিকগঞ্জে বিএনপি নেতা–কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, আটক ৫

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৪৪:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর ২০২৩ ১৬০ বার পড়া হয়েছে

বিএনপির ডাকা তিন দিনের অবরোধের সমর্থনে মানিকগঞ্জে মিছিল করেছেন দলের নেতা–কর্মীরা। সেখানে পুলিশের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরে নেতা-কর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ শটগানের গুলি ছুড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় বিএনপির কয়েক নেতা-কর্মী আহত হন।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের অদূরে মানরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিএনপির পাঁচ নেতাকে আটক করেছে। আটক হওয়া নেতা–কর্মীরা হলেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আজাদ হোসেন খান, মানিকগঞ্জ পৌর বিএনপির সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক ওরফে লিটন, জেলা কৃষকদলের সাবেক সভাপতি মনির হোসেন ও পৌর যুবদলের সদস্য আরিফ হোসেন।
বিএনপির নেতারা দাবি করেন, অবরোধের সমর্থনে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ বাধা দেয়। একপর্যায়ে শটগানের গুলি ছোড়ে। এতে বিএনপির অন্তত ১০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও সরেজমিনে দেখা গেছে, আজ সকাল সোয়া সাতটার দিকে মানিকগঞ্জ পৌর এলাকার পশ্চিম সেওতা এলাকা থেকে অবরোধের সমর্থনে মিছিল বের করেন বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা। অবরোধের সমর্থনে ও আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দিতে দিতে নেতা-কর্মীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দিকে যেতে থাকেন। সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মানরা এলাকায় মিছিল নিয়ে নেতা-কর্মীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে উঠতে গেলে পুলিশ মিছিলের ব্যানার কেড়ে নেয়। এরপর পুলিশ ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। বিএনপির নেতা-কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে পুলিশ শটগানের কয়েকটি গুলি ছুড়ে তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এস জিন্নাহ কবির বলেন, বিনা উসকানিতে অবরোধের সমর্থনে শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা করেছে। পুলিশের গুলি ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ায় বিএনপির অন্তত ১০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। মিছিল থেকে দলের পাঁচ নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, একটি রাজনৈতিক দলের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করা গণতান্ত্রিক অধিকার। জনবিচ্ছিন্ন আওয়ামী লীগ সরকার পুলিশ বাহিনীকে দিয়ে বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দিয়ে আসছে। গুলি করে নেতা-কর্মীদের আহত করেছে। বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালিয়ে দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করা হচ্ছে।

মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর রউফ সরকার বলেন, অবরোধ সমর্থনকারীরা যানবাহনে অগ্নিসংযোগ ও সহিংসতা চালাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মিছিল নিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাঁদের বাধা দিলে পুলিশের ওপর আক্রমণ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। পরে শটগানের গুলি ছুড়ে তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ডিবির হারুন বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাং সদস্যদের সঙ্গে জড়িত ৩৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছৈ। তাদের গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওয়ারী ও গুলশান বিভাগ। গ্রেফতারদের মধ্যে বেশিরভাগ কিশোর গ্যাং সদস্যের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রয়েছে। তিনি জানান, গ্রেফতাররা বাড্ডা, ভাটারা, তুরাগ, তিনশ ফিট ও যাত্রাবাড়ীসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় টার্গেট করা ব্যক্তিদের ইভটিজিং বা কোনো সময় ধাক্কা দেওয়ার ছলে উত্ত্যক্ত করত। এরপর তারা ঘেরাও করে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে মোবাইলফোন এবং নারীদের কাছ থেকে সোনার অলঙ্কার ছিনিয়ে নিত। এ ছাড়া তারা ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও চুরির সঙ্গে জড়িত। এসব গ্যাং সদস্য মাদক কারবারের সঙ্গেও জড়িত। ডিবি হারুন জানান, গ্রেফতার কিশোর গ্যাং সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদে কিছু কথিত বড় ভাইয়ের নাম পাওয়া গেছে। বড় ভাইদেরও গ্রেফতার করা হবে। কিশোর গ্যাং সদস্যদের বিরুদ্ধে ডিবির প্রতিটি টিম কাজ করছে।

মানিকগঞ্জে বিএনপি নেতা–কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, আটক ৫

আপডেট সময় : ১১:৪৪:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর ২০২৩

বিএনপির ডাকা তিন দিনের অবরোধের সমর্থনে মানিকগঞ্জে মিছিল করেছেন দলের নেতা–কর্মীরা। সেখানে পুলিশের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরে নেতা-কর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ শটগানের গুলি ছুড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় বিএনপির কয়েক নেতা-কর্মী আহত হন।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের অদূরে মানরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিএনপির পাঁচ নেতাকে আটক করেছে। আটক হওয়া নেতা–কর্মীরা হলেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আজাদ হোসেন খান, মানিকগঞ্জ পৌর বিএনপির সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক ওরফে লিটন, জেলা কৃষকদলের সাবেক সভাপতি মনির হোসেন ও পৌর যুবদলের সদস্য আরিফ হোসেন।
বিএনপির নেতারা দাবি করেন, অবরোধের সমর্থনে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ বাধা দেয়। একপর্যায়ে শটগানের গুলি ছোড়ে। এতে বিএনপির অন্তত ১০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও সরেজমিনে দেখা গেছে, আজ সকাল সোয়া সাতটার দিকে মানিকগঞ্জ পৌর এলাকার পশ্চিম সেওতা এলাকা থেকে অবরোধের সমর্থনে মিছিল বের করেন বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা। অবরোধের সমর্থনে ও আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দিতে দিতে নেতা-কর্মীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দিকে যেতে থাকেন। সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মানরা এলাকায় মিছিল নিয়ে নেতা-কর্মীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে উঠতে গেলে পুলিশ মিছিলের ব্যানার কেড়ে নেয়। এরপর পুলিশ ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। বিএনপির নেতা-কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে পুলিশ শটগানের কয়েকটি গুলি ছুড়ে তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এস জিন্নাহ কবির বলেন, বিনা উসকানিতে অবরোধের সমর্থনে শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা করেছে। পুলিশের গুলি ও পাল্টাপাল্টি ধাওয়ায় বিএনপির অন্তত ১০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। মিছিল থেকে দলের পাঁচ নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, একটি রাজনৈতিক দলের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করা গণতান্ত্রিক অধিকার। জনবিচ্ছিন্ন আওয়ামী লীগ সরকার পুলিশ বাহিনীকে দিয়ে বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা দিয়ে আসছে। গুলি করে নেতা-কর্মীদের আহত করেছে। বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালিয়ে দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করা হচ্ছে।

মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর রউফ সরকার বলেন, অবরোধ সমর্থনকারীরা যানবাহনে অগ্নিসংযোগ ও সহিংসতা চালাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে মিছিল নিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাঁদের বাধা দিলে পুলিশের ওপর আক্রমণ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। পরে শটগানের গুলি ছুড়ে তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে।