ঢাকা ০২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

ময়মনসিংহে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদে নতুন সেতু নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৯:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১৪৫ বার পড়া হয়েছে

ময়মনসিংহে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর কেওটখালী সেতু নির্মাণের জন্য ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। যৌথভাবে দুটি প্রতিষ্ঠান সেতু নির্মাণের কাজ পেয়েছে। একটি চীনের চায়না স্টেট কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন লিমিটেড এবং বাংলাদেশের স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড।

গতকাল সোমবার বিকেলে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ঠিকাদারদের সঙ্গে চুক্তি সই হয়। এ সময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী উপস্থিত ছিলেন।
সেতুটি নির্মাণে প্রায় ২ হাজার ১৩৭ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছে। সওজের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন প্রকল্প পরিচালক নূর-ই-আলম। অন্যদিকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তি সই করেন সু ইয়ান।

কেওটখালী সেতুর দৈর্ঘ্য হবে ১ দশমিক ১ কিলোমিটার। এর মাঝখানে ৩২০ মিটার হবে স্টিলের খিলান বা তরুণের মতো। এ ছাড়া পাঁচটি ওভারপাস বা উড়াল সেতু নির্মাণ করা হবে। থাকবে চারলেনের সংযোগ সড়ক, টোলপ্লাজা, বিশ্রামাগার। ভূমি অধিগ্রহণসহ প্রকল্পে মোট ব্যয় ৩ হাজার ২৬৩ কোটি টাকা। সেতুটি ময়মনসিংহের কেওয়াটখালিতে বিদ্যমান রেলসেতুর পাশেই পুরাতন ব্রহ্মপত্র নদের ওপর নির্মিত হবে।
প্রকল্প কর্তৃপক্ষ বলছে, সেতু নির্মিত হলে ময়মনসিংহ জেলা সদরসহ নেত্রকোনা জেলার বিজয়পুর, শেরপুরের নাকুগাঁও, ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট এবং জামালপুরের ধানুয়া-কামালপুর গুরুত্বপূর্ণ বন্দরের সঙ্গে রাজধানী ঢাকার সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হবে। পাশাপাশি কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা ও সুনামগঞ্জ জেলার হাওর অঞ্চলের সঙ্গে মহাসড়ক যোগাযোগের পরিসর বাড়বে।
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সওজের প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ মঈনুল হাসান, স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খান মো. আফতাবউদ্দিনসহ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ময়মনসিংহে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদে নতুন সেতু নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ

আপডেট সময় : ০৬:৫৯:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ময়মনসিংহে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর কেওটখালী সেতু নির্মাণের জন্য ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। যৌথভাবে দুটি প্রতিষ্ঠান সেতু নির্মাণের কাজ পেয়েছে। একটি চীনের চায়না স্টেট কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন লিমিটেড এবং বাংলাদেশের স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড।

গতকাল সোমবার বিকেলে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ঠিকাদারদের সঙ্গে চুক্তি সই হয়। এ সময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী উপস্থিত ছিলেন।
সেতুটি নির্মাণে প্রায় ২ হাজার ১৩৭ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছে। সওজের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন প্রকল্প পরিচালক নূর-ই-আলম। অন্যদিকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তি সই করেন সু ইয়ান।

কেওটখালী সেতুর দৈর্ঘ্য হবে ১ দশমিক ১ কিলোমিটার। এর মাঝখানে ৩২০ মিটার হবে স্টিলের খিলান বা তরুণের মতো। এ ছাড়া পাঁচটি ওভারপাস বা উড়াল সেতু নির্মাণ করা হবে। থাকবে চারলেনের সংযোগ সড়ক, টোলপ্লাজা, বিশ্রামাগার। ভূমি অধিগ্রহণসহ প্রকল্পে মোট ব্যয় ৩ হাজার ২৬৩ কোটি টাকা। সেতুটি ময়মনসিংহের কেওয়াটখালিতে বিদ্যমান রেলসেতুর পাশেই পুরাতন ব্রহ্মপত্র নদের ওপর নির্মিত হবে।
প্রকল্প কর্তৃপক্ষ বলছে, সেতু নির্মিত হলে ময়মনসিংহ জেলা সদরসহ নেত্রকোনা জেলার বিজয়পুর, শেরপুরের নাকুগাঁও, ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট এবং জামালপুরের ধানুয়া-কামালপুর গুরুত্বপূর্ণ বন্দরের সঙ্গে রাজধানী ঢাকার সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হবে। পাশাপাশি কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা ও সুনামগঞ্জ জেলার হাওর অঞ্চলের সঙ্গে মহাসড়ক যোগাযোগের পরিসর বাড়বে।
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সওজের প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ মঈনুল হাসান, স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খান মো. আফতাবউদ্দিনসহ প্রমুখ।