ঢাকা ০২:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

ভোটগ্রহণ শুরু ১৫৬ উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৬:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪ ১৫ বার পড়া হয়েছে

দেশের ১৫৬টি উপজেলায় শুরু হয়েছে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল ৮টায় শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ একযোগে নিরবচ্ছিন্নভাবে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

এর আগে গত ৮ মে প্রথম ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই ভোটে ইসির প্রত্যাশা অনুযায়ী ভোটার উপস্থিতি হয়নি। মোট ভোট পড়েছিল মাত্র ৩৬ দশমিক ১ শতাংশ। তবে দ্বিতীয় ধাপের ভোটে কেন্দ্রে পর্যাপ্ত ভোটার উপস্থিতি হবে বলে প্রত্যাশা করছে ইসি। সেজন্য কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি বাড়াতে এবং নির্বাচন সুন্দর ও সুষ্ঠু করতে সব ধরনের প্রস্তুতিও নিয়েছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তায় নেওয়া হয়েছে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা ঝুঁকি এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র বিবেচনায় পর্যাপ্ত এবং কোথাও অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েনের সুপারিশ করেছে ইসি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠিও পাঠানো হয়েছে। সে হিসাবে সাধারণ কেন্দ্রে ১৭ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১৮-১৯ জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। এ ছাড়া দুর্গম এলাকায় সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ২০-২১ জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।

আবার উপজেলার আয়তন, ভোটার সংখ্যা ও ভোটকেন্দ্রের গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে উপজেলায় ২-৪ প্লাটুন বিজিবি সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। একইসঙ্গে নিরাপত্তা বিবেচনায় ১৬ উপজেলায় অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকবে।

নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে ৪৮ হাজার পুলিশ ও ৪৫৮ প্লাটুন বিজিবি

ইসি সূত্রে জানা গেছে, ১৫৬ উপজেলায় মোবাইল স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিজিবি মোতায়েন থাকবে ৪৫৮ প্লাটুন। ভোটকেন্দ্রে পুলিশ মোতায়েন থাকবে ৪৭ হাজার ৮২৯ জন। স্ট্রাইকিং ও মোবাইল টিম হিসেবে পুলিশ থাকবে ১৯ হাজার ৫৭ জন। এলিট ফোর্স র‍্যাব থাকবে ২ হাজার ৭৬৮ জন ও আনসার সদস্য থাকবে ১ লাখ ৯৩ হাজার ২৮৭ জন।

সার্বক্ষণিক নজর রাখবেন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট

ভোটের আগে-পরে নির্বাচনী আচরণবিধি মানাতে ইসির পক্ষ থেকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে নির্বাহী ও বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট। তারা কাজ শুরু করেছেন ভোট গ্রহণের তিন দিন আগেই। আজ ভোটের দিন এবং আগামীকালও প্রতি তিন ইউনিয়নে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। একইসঙ্গে ভোটগ্রহণের দু’দিন পর পর্যন্ত প্রতি উপজেলায় একজন করে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন।

ভোটার ও ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা

ইসি সূত্রে জানা গেছে, ১৫৬ উপজেলায় মোট কেন্দ্রের সংখ্যা রয়েছে ১৩ হাজার ১৬টি। ভোট কক্ষ রয়েছে ৯১ হাজার ৫৮৯। অস্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে আট হাজার ৮৪১টি। দ্বিতীয় ধাপের এ নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ কোটি ৫২ লাখ ৪ হাজার ৭৪৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ১ কোটি ৭৯ লাখ ৫ হাজার ৪৬৪ জন, নারী ভোটার রয়েছেন ১ কোটি ৭২ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭ জন এবং হিজড়া ভোটার রয়েছেন ২৩৭ জন।

নির্বাচনে তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১ হাজার ৮২৪ জন প্রার্থী

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, দ্বিতীয় ধাপের ১৫৬ উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে তিন পদে এক হাজার ৮২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৬০৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬৯৩ জন এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫৯৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আবার তিন পদে ২২ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এরই মধ্যে বিজয়ী হয়েছেন। দুটি উপজেলায় তিন পদে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় লাভ করেছেন।

২ ঘণ্টা পরপর কাস্টিং ভোটের তথ্য পাঠাতে হবে ঢাকায়

অপরদিকে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের ভোট কাস্টিং তথ্য দুই ঘণ্টা পরপর ঢাকায় পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের উপপরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ভোট সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এ নির্দেশ দিয়ে চিঠি দিয়েছেন। এতে বলা হয়েছে, ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তাদের (প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসার) মোবাইল অ্যাপস বা এসএমএসের মাধ্যমে ২ ঘণ্টা পরপর ভোট কেন্দ্রের কাস্টিং ভোটের তথ্য পাঠাতে হবে।

উল্লেখ্য, ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী প্রথম ধাপে ১৩৯টি উপজেলায় ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে গত ৮ মে। আর আজ দ্বিতীয় ধাপে ১৫৬টি উপজেলার ভোটগ্রহণ চলছে। এরপর তৃতীয় ধাপে ১১২টি উপজেলায় আগামী ২৯ মে এবং চতুর্থ ধাপে ৫৫টি উপজেলায় আগামী ৫ জুন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ২২টি, দ্বিতীয় ধাপে ২৪টি, তৃতীয় ধাপে ২১টি ও চতুর্থ ধাপে ২টি উপজেলায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইলেকশন কমিশন (ইসি)।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ভোটগ্রহণ শুরু ১৫৬ উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপের

আপডেট সময় : ০৯:৫৬:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

দেশের ১৫৬টি উপজেলায় শুরু হয়েছে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল ৮টায় শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ একযোগে নিরবচ্ছিন্নভাবে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

এর আগে গত ৮ মে প্রথম ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই ভোটে ইসির প্রত্যাশা অনুযায়ী ভোটার উপস্থিতি হয়নি। মোট ভোট পড়েছিল মাত্র ৩৬ দশমিক ১ শতাংশ। তবে দ্বিতীয় ধাপের ভোটে কেন্দ্রে পর্যাপ্ত ভোটার উপস্থিতি হবে বলে প্রত্যাশা করছে ইসি। সেজন্য কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি বাড়াতে এবং নির্বাচন সুন্দর ও সুষ্ঠু করতে সব ধরনের প্রস্তুতিও নিয়েছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তায় নেওয়া হয়েছে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা ঝুঁকি এবং গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র বিবেচনায় পর্যাপ্ত এবং কোথাও অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েনের সুপারিশ করেছে ইসি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠিও পাঠানো হয়েছে। সে হিসাবে সাধারণ কেন্দ্রে ১৭ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১৮-১৯ জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। এ ছাড়া দুর্গম এলাকায় সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ২০-২১ জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।

আবার উপজেলার আয়তন, ভোটার সংখ্যা ও ভোটকেন্দ্রের গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে উপজেলায় ২-৪ প্লাটুন বিজিবি সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। একইসঙ্গে নিরাপত্তা বিবেচনায় ১৬ উপজেলায় অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকবে।

নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে ৪৮ হাজার পুলিশ ও ৪৫৮ প্লাটুন বিজিবি

ইসি সূত্রে জানা গেছে, ১৫৬ উপজেলায় মোবাইল স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিজিবি মোতায়েন থাকবে ৪৫৮ প্লাটুন। ভোটকেন্দ্রে পুলিশ মোতায়েন থাকবে ৪৭ হাজার ৮২৯ জন। স্ট্রাইকিং ও মোবাইল টিম হিসেবে পুলিশ থাকবে ১৯ হাজার ৫৭ জন। এলিট ফোর্স র‍্যাব থাকবে ২ হাজার ৭৬৮ জন ও আনসার সদস্য থাকবে ১ লাখ ৯৩ হাজার ২৮৭ জন।

সার্বক্ষণিক নজর রাখবেন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট

ভোটের আগে-পরে নির্বাচনী আচরণবিধি মানাতে ইসির পক্ষ থেকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে নির্বাহী ও বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট। তারা কাজ শুরু করেছেন ভোট গ্রহণের তিন দিন আগেই। আজ ভোটের দিন এবং আগামীকালও প্রতি তিন ইউনিয়নে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। একইসঙ্গে ভোটগ্রহণের দু’দিন পর পর্যন্ত প্রতি উপজেলায় একজন করে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন।

ভোটার ও ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা

ইসি সূত্রে জানা গেছে, ১৫৬ উপজেলায় মোট কেন্দ্রের সংখ্যা রয়েছে ১৩ হাজার ১৬টি। ভোট কক্ষ রয়েছে ৯১ হাজার ৫৮৯। অস্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে আট হাজার ৮৪১টি। দ্বিতীয় ধাপের এ নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ কোটি ৫২ লাখ ৪ হাজার ৭৪৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ১ কোটি ৭৯ লাখ ৫ হাজার ৪৬৪ জন, নারী ভোটার রয়েছেন ১ কোটি ৭২ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭ জন এবং হিজড়া ভোটার রয়েছেন ২৩৭ জন।

নির্বাচনে তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১ হাজার ৮২৪ জন প্রার্থী

নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, দ্বিতীয় ধাপের ১৫৬ উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে তিন পদে এক হাজার ৮২৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৬০৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬৯৩ জন এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫৯৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আবার তিন পদে ২২ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এরই মধ্যে বিজয়ী হয়েছেন। দুটি উপজেলায় তিন পদে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় লাভ করেছেন।

২ ঘণ্টা পরপর কাস্টিং ভোটের তথ্য পাঠাতে হবে ঢাকায়

অপরদিকে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের ভোট কাস্টিং তথ্য দুই ঘণ্টা পরপর ঢাকায় পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের উপপরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ভোট সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এ নির্দেশ দিয়ে চিঠি দিয়েছেন। এতে বলা হয়েছে, ভোটগ্রহণকারী কর্মকর্তাদের (প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসার) মোবাইল অ্যাপস বা এসএমএসের মাধ্যমে ২ ঘণ্টা পরপর ভোট কেন্দ্রের কাস্টিং ভোটের তথ্য পাঠাতে হবে।

উল্লেখ্য, ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী প্রথম ধাপে ১৩৯টি উপজেলায় ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে গত ৮ মে। আর আজ দ্বিতীয় ধাপে ১৫৬টি উপজেলার ভোটগ্রহণ চলছে। এরপর তৃতীয় ধাপে ১১২টি উপজেলায় আগামী ২৯ মে এবং চতুর্থ ধাপে ৫৫টি উপজেলায় আগামী ৫ জুন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে প্রথম ধাপে ২২টি, দ্বিতীয় ধাপে ২৪টি, তৃতীয় ধাপে ২১টি ও চতুর্থ ধাপে ২টি উপজেলায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইলেকশন কমিশন (ইসি)।