ঢাকা ১২:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

বিশ্ব রেকর্ড করলেন নারী টানা ৩৪ ঘণ্টা কুসি–কাঁটার কাজ করে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:০৪:২০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ নভেম্বর ২০২৩ ১৪০ বার পড়া হয়েছে

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন অঙ্গরাজ্যের এক নারী আট বছর বয়সে কুসি–কাঁটার কাজ শিখেছিলেন। ধীরে ধীরে কাজটি তাঁর পছন্দের তালিকায় ঢুকে যায়। সুযোগ পেলেই কুসি–কাঁটা নিয়ে বসে যেতেন। তাঁর হাতের কাজ দেখে অনেকেই সেসব কিনে নিতেন। সব সময় তাঁকে ফরমায়েশি পণ্য তৈরি নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়। এবার সেই কাজ করলেন টানা ৩৪ ঘণ্টা ৭ মিনিট ধরে। গড়লেন বিশ্ব রেকর্ড।

ওয়াশিংটনের গিগ হারবোর শহরের আলেসান্দ্রা হেইডেন গড়লেন দীর্ঘতম ম্যারাথন কুসি–কাঁটার বুননের।
হেইডেন গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসকে বলেন, ‘আমি একজন বিশ্ব রেকর্ডধারী হতে চেয়েছিলাম। এমন কিছু করতে চেয়েছিলাম, যা আমার কাছে অর্থবহ হবে। আর এ দুইয়ের সঠিক সমন্বয় হলো এটাই (কুসি–কাঁটার কাজ)। আমি কুসি–কাঁটার অন্য রেকর্ডগুলো নিয়ে ভেবেছিলাম। দেখেছি, সেখানে সম্ভাবনা কত। পরে দেখলাম, এটি আমার জন্য ঠিক হবে। আর সেভাবেই কাজে লেগে গেলাম।’

হেইডেন বলেন, দাদির কাছ থেকে কুসি–কাঁটার কাজ শিখেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমার দাদি হাতের কাজ খুব পছন্দ করতেন। তবে তিনি ভালোভাবে চলাফেরা করতে পারতেন না। তাই তিনি আমাকে কুসি–কাঁটার কাজ শিখিয়েছেন, যাতে তিনি আমাকে ব্যস্ত রাখতে পারেন, আমার পেছনে সারাক্ষণ দৌড়াতে না হয়। আর কুসি–কাঁটার কাজ শেখানোর আরেকটি কারণ ছিল, তিনি নিজেও এই কাজ পছন্দ করতেন।’
হেইডেনের এ পদক্ষেপে পাশে ছিল তাঁর পরিবার। তাঁর স্বামী পুরো সময় কাজের ওপর নজর এবং কাগজে হিসাব রেখেছেন।

হেইডেন বলেন, ‘দীর্ঘ এ সময়ে আমার মেয়ে আমাকে হালকা খাবার, পানি, কফি খাইয়েছি। মাঝেমধ্যে এনার্জি পানীয় দিয়েছে। তরল সব খাবারই আমি স্ট্র দিয়ে পান করেছি।’
এখন প্রশ্ন হলো, এত দীর্ঘ সময় ধরে হেইডেন কী বুনলেন। তিনি একটি শাল তৈরি করেছেন। এটি তাঁর মেয়ের স্কুলের নিলামে তোলা হয়েছে। সেখানে মেয়ের এক বন্ধু দুই হাজার মার্কিন ডলার দিয়ে সেটা কিনে নিয়ে আবার হেইডেনকেই উপহার দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বিশ্ব রেকর্ড করলেন নারী টানা ৩৪ ঘণ্টা কুসি–কাঁটার কাজ করে

আপডেট সময় : ১০:০৪:২০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ নভেম্বর ২০২৩

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন অঙ্গরাজ্যের এক নারী আট বছর বয়সে কুসি–কাঁটার কাজ শিখেছিলেন। ধীরে ধীরে কাজটি তাঁর পছন্দের তালিকায় ঢুকে যায়। সুযোগ পেলেই কুসি–কাঁটা নিয়ে বসে যেতেন। তাঁর হাতের কাজ দেখে অনেকেই সেসব কিনে নিতেন। সব সময় তাঁকে ফরমায়েশি পণ্য তৈরি নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়। এবার সেই কাজ করলেন টানা ৩৪ ঘণ্টা ৭ মিনিট ধরে। গড়লেন বিশ্ব রেকর্ড।

ওয়াশিংটনের গিগ হারবোর শহরের আলেসান্দ্রা হেইডেন গড়লেন দীর্ঘতম ম্যারাথন কুসি–কাঁটার বুননের।
হেইডেন গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসকে বলেন, ‘আমি একজন বিশ্ব রেকর্ডধারী হতে চেয়েছিলাম। এমন কিছু করতে চেয়েছিলাম, যা আমার কাছে অর্থবহ হবে। আর এ দুইয়ের সঠিক সমন্বয় হলো এটাই (কুসি–কাঁটার কাজ)। আমি কুসি–কাঁটার অন্য রেকর্ডগুলো নিয়ে ভেবেছিলাম। দেখেছি, সেখানে সম্ভাবনা কত। পরে দেখলাম, এটি আমার জন্য ঠিক হবে। আর সেভাবেই কাজে লেগে গেলাম।’

হেইডেন বলেন, দাদির কাছ থেকে কুসি–কাঁটার কাজ শিখেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আমার দাদি হাতের কাজ খুব পছন্দ করতেন। তবে তিনি ভালোভাবে চলাফেরা করতে পারতেন না। তাই তিনি আমাকে কুসি–কাঁটার কাজ শিখিয়েছেন, যাতে তিনি আমাকে ব্যস্ত রাখতে পারেন, আমার পেছনে সারাক্ষণ দৌড়াতে না হয়। আর কুসি–কাঁটার কাজ শেখানোর আরেকটি কারণ ছিল, তিনি নিজেও এই কাজ পছন্দ করতেন।’
হেইডেনের এ পদক্ষেপে পাশে ছিল তাঁর পরিবার। তাঁর স্বামী পুরো সময় কাজের ওপর নজর এবং কাগজে হিসাব রেখেছেন।

হেইডেন বলেন, ‘দীর্ঘ এ সময়ে আমার মেয়ে আমাকে হালকা খাবার, পানি, কফি খাইয়েছি। মাঝেমধ্যে এনার্জি পানীয় দিয়েছে। তরল সব খাবারই আমি স্ট্র দিয়ে পান করেছি।’
এখন প্রশ্ন হলো, এত দীর্ঘ সময় ধরে হেইডেন কী বুনলেন। তিনি একটি শাল তৈরি করেছেন। এটি তাঁর মেয়ের স্কুলের নিলামে তোলা হয়েছে। সেখানে মেয়ের এক বন্ধু দুই হাজার মার্কিন ডলার দিয়ে সেটা কিনে নিয়ে আবার হেইডেনকেই উপহার দেন।