ঢাকা ০৪:৪১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

‘নির্বাচন ছিল একপক্ষীয় পাতানো, অনুঘটক ইসি’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১০:০৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৪ ২৯ বার পড়া হয়েছে

সমকালের প্রধান শিরোনাম, ‘নির্বাচন ছিল একপক্ষীয় পাতানো, অনুঘটক ইসি’। প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন একপক্ষীয় ও পাতানো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়েছে বলে মনে করছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাটি বলেছে, “এবারের নির্বাচন অবাধ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক হয়নি। এ নির্বাচন দেশের গণতন্ত্র ও ভবিষ্যত গণতান্ত্রিক নির্বাচনের ভবিষ্যতের জন্য অশনিসংকেত।”

বুধবার ঢাকার টিআইবির কার্যালয়ে ‘দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া ট্র্যাকিং’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলা হয়।

এতে নির্বাচন নিয়ে পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান।
দৈবচয়নের ভিত্তিতে ৭ই জানুয়ারির ভোটে ২৯৯ টি আসনের মধ্যে টিআইবি ৮টি বিভাগের ৫০টিকে গবেষণা প্রতিবেদনে তুলে ধরেছে।

পাশাপাশি কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনের দায়িত্ব নেওয়ার পর আইন ও বিধির সংস্কার, সীমানা পুনঃনির্ধারণ, নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনসহ নির্বাচন বিষয়ক বিভিন্ন কর্মকান্ডের তথ্য ও উপাত্ত তুলে ধরা হয় এই সংবাদ সম্মেলনে।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, নির্বাচন কমিশন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার নামে কৌশলে একতরফা নির্বাচনের এজেন্ডা বাস্তবায়নের অন্যতম অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে।

অন্যান্য রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও প্রশাসনও এই এজেন্ডার সহায়ক ভূমিকায় ছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

‘নির্বাচন ছিল একপক্ষীয় পাতানো, অনুঘটক ইসি’

আপডেট সময় : ০৯:১০:০৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৪

সমকালের প্রধান শিরোনাম, ‘নির্বাচন ছিল একপক্ষীয় পাতানো, অনুঘটক ইসি’। প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন একপক্ষীয় ও পাতানো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়েছে বলে মনে করছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

দুর্নীতিবিরোধী সংস্থাটি বলেছে, “এবারের নির্বাচন অবাধ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক হয়নি। এ নির্বাচন দেশের গণতন্ত্র ও ভবিষ্যত গণতান্ত্রিক নির্বাচনের ভবিষ্যতের জন্য অশনিসংকেত।”

বুধবার ঢাকার টিআইবির কার্যালয়ে ‘দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া ট্র্যাকিং’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলা হয়।

এতে নির্বাচন নিয়ে পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান।
দৈবচয়নের ভিত্তিতে ৭ই জানুয়ারির ভোটে ২৯৯ টি আসনের মধ্যে টিআইবি ৮টি বিভাগের ৫০টিকে গবেষণা প্রতিবেদনে তুলে ধরেছে।

পাশাপাশি কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনের দায়িত্ব নেওয়ার পর আইন ও বিধির সংস্কার, সীমানা পুনঃনির্ধারণ, নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধনসহ নির্বাচন বিষয়ক বিভিন্ন কর্মকান্ডের তথ্য ও উপাত্ত তুলে ধরা হয় এই সংবাদ সম্মেলনে।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, নির্বাচন কমিশন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার নামে কৌশলে একতরফা নির্বাচনের এজেন্ডা বাস্তবায়নের অন্যতম অনুঘটক হিসেবে কাজ করেছে।

অন্যান্য রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও প্রশাসনও এই এজেন্ডার সহায়ক ভূমিকায় ছিল।