ঢাকা ০১:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

দেশের অন্যান্য এলাকার মত চাঁপাইনবাবগঞ্জেও বয়ে যাচ্ছে দাবদাহ। যার ফলে গরমে অতিষ্ট বিভিন্ন বয়সী মানুশ।গা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৫৮:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪ ৮৪ বার পড়া হয়েছে

দেশের অন্যান্য এলাকার মত চাঁপাইনবাবগঞ্জেও বয়ে যাচ্ছে দাবদাহ। যার ফলে গরমে অতিষ্ট বিভিন্ন বয়সী মানুশ।গা ঝলসানো গরমের পেটের বাড়ির বাইরে বের হতে হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষকে। স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে অতি তাপমাত্রার কারণে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ছে। এ সময় মানুষকে সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা ও জীবন যাপন করতে হবে।

ঠা ঠা রোদে পুড়ছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ। প্রতিদিনই উঠছে তাপমাত্রার পারদ। বৈশাখের তৃতীয় সপ্তাহে এসেও বৃষ্টির দেখা নেই। তাই ফলে প্রচন্ড গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা মানুষের। গরমে সবচেয়ে কাহিল অবস্থা দিনমজুরসহ খেটে খাওয়া মানুষের। পেটের তাগিদেই বাধ্য হয়ে তীব্র তাপ উপেক্ষা করে তাদের বের হতে হচ্ছে কাজের সন্ধানে। গরমের কারণে দিনের আয় কমে গেছে বলে জানালেন রিক্সা চালকরা।

স্বার্থ বিভাগের কর্মকর্তা এস এম মাহমুদুর রশিদ সিভিল সার্জন বলেন জেলায় তাপমাত্রা ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠেছে যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এ সময় হিট স্ট্রোকে আক্রান্তের ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায় এবং মৃত্যুও হতে পারে। তাই জরুরী কাজ ছাড়া বাইরে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

চলমান তাপ প্রবাহের দিনগুলো সাধারণ মানুষের খাবার গ্রহনেও সতর্ক হতে হবে। অন্যথায় ডায়রিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

রিপোর্ট করেছেন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

আব্দুল ওয়াহাব।

নিউজটি শেয়ার করুন

দেশের অন্যান্য এলাকার মত চাঁপাইনবাবগঞ্জেও বয়ে যাচ্ছে দাবদাহ। যার ফলে গরমে অতিষ্ট বিভিন্ন বয়সী মানুশ।গা

আপডেট সময় : ১০:৫৮:১৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

দেশের অন্যান্য এলাকার মত চাঁপাইনবাবগঞ্জেও বয়ে যাচ্ছে দাবদাহ। যার ফলে গরমে অতিষ্ট বিভিন্ন বয়সী মানুশ।গা ঝলসানো গরমের পেটের বাড়ির বাইরে বের হতে হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষকে। স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে অতি তাপমাত্রার কারণে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ছে। এ সময় মানুষকে সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা ও জীবন যাপন করতে হবে।

ঠা ঠা রোদে পুড়ছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ। প্রতিদিনই উঠছে তাপমাত্রার পারদ। বৈশাখের তৃতীয় সপ্তাহে এসেও বৃষ্টির দেখা নেই। তাই ফলে প্রচন্ড গরমে হাঁসফাঁস অবস্থা মানুষের। গরমে সবচেয়ে কাহিল অবস্থা দিনমজুরসহ খেটে খাওয়া মানুষের। পেটের তাগিদেই বাধ্য হয়ে তীব্র তাপ উপেক্ষা করে তাদের বের হতে হচ্ছে কাজের সন্ধানে। গরমের কারণে দিনের আয় কমে গেছে বলে জানালেন রিক্সা চালকরা।

স্বার্থ বিভাগের কর্মকর্তা এস এম মাহমুদুর রশিদ সিভিল সার্জন বলেন জেলায় তাপমাত্রা ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠেছে যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এ সময় হিট স্ট্রোকে আক্রান্তের ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায় এবং মৃত্যুও হতে পারে। তাই জরুরী কাজ ছাড়া বাইরে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

চলমান তাপ প্রবাহের দিনগুলো সাধারণ মানুষের খাবার গ্রহনেও সতর্ক হতে হবে। অন্যথায় ডায়রিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

রিপোর্ট করেছেন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

আব্দুল ওয়াহাব।