ঢাকা ০১:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

তাপদগ্ধ বাংলাদেশ জুড়ে অবশেষে কালবৈশাখী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৭:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মে ২০২৪ ৬২ বার পড়া হয়েছে

আগামী তিনদিনে বাংলাদেশের আটটি বিভাগেই কালবৈশাখী ঝড়ের সতর্কবার্তা জারি করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। রোববার বিকাল চারটায় জারি করা এ সতর্কবার্তা পরবর্তী বাহাত্তর ঘন্টা, অর্থাৎ বুধবার বিকাল চারটা পর্যন্ত বহাল থাকবে।

বাংলাদেশে টানা একমাসের তীব্র তাপপ্রবাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। অতি তাপপ্রবাহের প্রভাব পড়েছে কৃষি, গবাদি পশু-সহ সব ক্ষেত্রেই। সাধারণত এপ্রিলের মধ্যভাগে শুরু হওয়া বৈশাখ মাসে স্বাভাবিকভাবেই ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকে, কিন্তু এবছর এ পর্যন্ত বৈশাখে ঝড়ের সংখ্যা ছিল অনেক কম।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও কবে বৃষ্টি হবে এ নিয়ে ছিলো বেশ আলোচনা। ফলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের জারি করা ঝড়-বৃষ্টির এই পূর্বাভাস সাধারণ মানুষের কাছে স্বস্তি বয়ে আনবে।

রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা,খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, সিলেট বিভাগের উপর দিয়ে বিচ্ছিন্নভাবে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়া-সহ কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যেতে পারে বলে সতর্কবার্তা দিয়েছে অধিদপ্তর।

এ সময় প্রচণ্ড বজ্রপাত থাকতে পারে, কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টিও হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, এ বছর মে মাসে বাংলাদেশে গড়ে ১৩টি বজ্র ঝড় বা কালবৈশাখী ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এর কমবেশিও হতে পারে।

দিকে নিম্নচাপ অঞ্চলের দিকে ধাবিত হওয়ার ফলে মুখোমুখি স্থানে যে প্রবল ঝড়ের সৃষ্টি হয় সেটিই বাংলাদেশে কালবৈশাখী নামে পরিচিত।

আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক বিবিসি বাংলাকে বলেন, “মাসভিত্তিক বজ্র-ঝড়ের হিসাব অনুযায়ী, ১৯৮১ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত মে মাসে গড়ে ১৩ টি বজ্র-ঝড় বা কালবৈশাখী ঝড় হয়েছে। এবারও সেই গড় বজ্র-ঝড়ের কাছাকাছি ঝড় হতে পারে। তবে কমবেশিও হতে পারে।”

তবে, অতীতে এ মাসে গড়ে ১৩টি বজ্র-ঝড় এবং সর্বোচ্চ ১৮টি বজ্র-ঝড় হওয়ার রেকর্ডও রয়েছে বলে জানান আবহাওয়াবিদরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

তাপদগ্ধ বাংলাদেশ জুড়ে অবশেষে কালবৈশাখী

আপডেট সময় : ০৩:৪৭:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মে ২০২৪

আগামী তিনদিনে বাংলাদেশের আটটি বিভাগেই কালবৈশাখী ঝড়ের সতর্কবার্তা জারি করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। রোববার বিকাল চারটায় জারি করা এ সতর্কবার্তা পরবর্তী বাহাত্তর ঘন্টা, অর্থাৎ বুধবার বিকাল চারটা পর্যন্ত বহাল থাকবে।

বাংলাদেশে টানা একমাসের তীব্র তাপপ্রবাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। অতি তাপপ্রবাহের প্রভাব পড়েছে কৃষি, গবাদি পশু-সহ সব ক্ষেত্রেই। সাধারণত এপ্রিলের মধ্যভাগে শুরু হওয়া বৈশাখ মাসে স্বাভাবিকভাবেই ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকে, কিন্তু এবছর এ পর্যন্ত বৈশাখে ঝড়ের সংখ্যা ছিল অনেক কম।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও কবে বৃষ্টি হবে এ নিয়ে ছিলো বেশ আলোচনা। ফলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের জারি করা ঝড়-বৃষ্টির এই পূর্বাভাস সাধারণ মানুষের কাছে স্বস্তি বয়ে আনবে।

রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা,খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, সিলেট বিভাগের উপর দিয়ে বিচ্ছিন্নভাবে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়া-সহ কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যেতে পারে বলে সতর্কবার্তা দিয়েছে অধিদপ্তর।

এ সময় প্রচণ্ড বজ্রপাত থাকতে পারে, কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টিও হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, এ বছর মে মাসে বাংলাদেশে গড়ে ১৩টি বজ্র ঝড় বা কালবৈশাখী ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এর কমবেশিও হতে পারে।

দিকে নিম্নচাপ অঞ্চলের দিকে ধাবিত হওয়ার ফলে মুখোমুখি স্থানে যে প্রবল ঝড়ের সৃষ্টি হয় সেটিই বাংলাদেশে কালবৈশাখী নামে পরিচিত।

আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক বিবিসি বাংলাকে বলেন, “মাসভিত্তিক বজ্র-ঝড়ের হিসাব অনুযায়ী, ১৯৮১ সাল থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত মে মাসে গড়ে ১৩ টি বজ্র-ঝড় বা কালবৈশাখী ঝড় হয়েছে। এবারও সেই গড় বজ্র-ঝড়ের কাছাকাছি ঝড় হতে পারে। তবে কমবেশিও হতে পারে।”

তবে, অতীতে এ মাসে গড়ে ১৩টি বজ্র-ঝড় এবং সর্বোচ্চ ১৮টি বজ্র-ঝড় হওয়ার রেকর্ডও রয়েছে বলে জানান আবহাওয়াবিদরা।