ঢাকা ১০:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

ঠাকুরগাঁওয়ে নদ থেকে মা ও দুই ছেলের লাশ উদ্ধার, সবার হাত বাঁধা একই ওড়নায়

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১৬:১৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১৯৫ বার পড়া হয়েছে

নিখোঁজের এক দিন পর ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার তীরনই নদ থেকে মা ও দুই ছেলের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাঁরা নদে নিখোঁজ হওয়ার পর আজ বুধবার সকাল নয়টার দিকে তাঁদের লাশ পাওয়া যায়।

মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের কাশিডাঙ্গা গ্রামের আবদুর রহিমের স্ত্রী নাসিমা বেগম (৩৫) এবং তাঁর দুই ছেলে শাওন (৮) ও সিফাত (৪)। লাশ উদ্ধারের সময় মায়ের পরনের ওড়নার সঙ্গে ছেলেদের হাত বাঁধা ছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয় লোকজন।
স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল দুপুরে কাশিডাঙ্গা গ্রামের আবদুর রহিমের ছেলে শাওন তার ছোট ভাই সিফাতকে নিয়ে তীরনই নদে গোসল করছিল। এ সময় তাদের মা নাসিমা বেগম এসে নিজের ওড়নায় দুই ছেলের হাত বেঁধে নদে ঝাঁপ দেন। নদে প্রবল স্রোত থাকায় মুহূর্তেই তলিয়ে যান তাঁরা। খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যসহ স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা করেন। কিন্তু তাঁদের খুঁজে পাওয়া যায়নি। আজ বুধবার সকালে ঘটনাস্থলের ২০০ গজ দূরে দুই ছেলের লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও রানীশংকৈল পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ লাশগুলো উদ্ধার করে।
রানীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল বুধবার গভীর রাত পর্যন্ত নদের পানিতে মা ও ছেলেদের খোঁজ করা হয়েছে, কিন্তু পাওয়া যায়নি। আজ তাঁদের লাশ পাওয়া গেছে। লাশ উদ্ধারের সময় মায়ের পরনের ওড়না দিয়ে ছেলেদের হাত বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে, আত্মহত্যা করতে ছেলেদের হাত বেঁধে মা নদে ঝাঁপ দেন। এ ঘটনায় পেছনে কোনো প্ররোচনা থাকতে পারে।

রানীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গুলফামুল ইসলাম মণ্ডল সকাল ১০টার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, নদ থেকে মা ও দুই ছেলের লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে রওনা দিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ডিবির হারুন বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাং সদস্যদের সঙ্গে জড়িত ৩৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছৈ। তাদের গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওয়ারী ও গুলশান বিভাগ। গ্রেফতারদের মধ্যে বেশিরভাগ কিশোর গ্যাং সদস্যের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রয়েছে। তিনি জানান, গ্রেফতাররা বাড্ডা, ভাটারা, তুরাগ, তিনশ ফিট ও যাত্রাবাড়ীসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় টার্গেট করা ব্যক্তিদের ইভটিজিং বা কোনো সময় ধাক্কা দেওয়ার ছলে উত্ত্যক্ত করত। এরপর তারা ঘেরাও করে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে মোবাইলফোন এবং নারীদের কাছ থেকে সোনার অলঙ্কার ছিনিয়ে নিত। এ ছাড়া তারা ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও চুরির সঙ্গে জড়িত। এসব গ্যাং সদস্য মাদক কারবারের সঙ্গেও জড়িত। ডিবি হারুন জানান, গ্রেফতার কিশোর গ্যাং সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদে কিছু কথিত বড় ভাইয়ের নাম পাওয়া গেছে। বড় ভাইদেরও গ্রেফতার করা হবে। কিশোর গ্যাং সদস্যদের বিরুদ্ধে ডিবির প্রতিটি টিম কাজ করছে।

ঠাকুরগাঁওয়ে নদ থেকে মা ও দুই ছেলের লাশ উদ্ধার, সবার হাত বাঁধা একই ওড়নায়

আপডেট সময় : ০৯:১৬:১৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

নিখোঁজের এক দিন পর ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার তীরনই নদ থেকে মা ও দুই ছেলের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাঁরা নদে নিখোঁজ হওয়ার পর আজ বুধবার সকাল নয়টার দিকে তাঁদের লাশ পাওয়া যায়।

মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের কাশিডাঙ্গা গ্রামের আবদুর রহিমের স্ত্রী নাসিমা বেগম (৩৫) এবং তাঁর দুই ছেলে শাওন (৮) ও সিফাত (৪)। লাশ উদ্ধারের সময় মায়ের পরনের ওড়নার সঙ্গে ছেলেদের হাত বাঁধা ছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয় লোকজন।
স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল দুপুরে কাশিডাঙ্গা গ্রামের আবদুর রহিমের ছেলে শাওন তার ছোট ভাই সিফাতকে নিয়ে তীরনই নদে গোসল করছিল। এ সময় তাদের মা নাসিমা বেগম এসে নিজের ওড়নায় দুই ছেলের হাত বেঁধে নদে ঝাঁপ দেন। নদে প্রবল স্রোত থাকায় মুহূর্তেই তলিয়ে যান তাঁরা। খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যসহ স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা করেন। কিন্তু তাঁদের খুঁজে পাওয়া যায়নি। আজ বুধবার সকালে ঘটনাস্থলের ২০০ গজ দূরে দুই ছেলের লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও রানীশংকৈল পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ লাশগুলো উদ্ধার করে।
রানীশংকৈল উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল বুধবার গভীর রাত পর্যন্ত নদের পানিতে মা ও ছেলেদের খোঁজ করা হয়েছে, কিন্তু পাওয়া যায়নি। আজ তাঁদের লাশ পাওয়া গেছে। লাশ উদ্ধারের সময় মায়ের পরনের ওড়না দিয়ে ছেলেদের হাত বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে, আত্মহত্যা করতে ছেলেদের হাত বেঁধে মা নদে ঝাঁপ দেন। এ ঘটনায় পেছনে কোনো প্ররোচনা থাকতে পারে।

রানীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গুলফামুল ইসলাম মণ্ডল সকাল ১০টার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, নদ থেকে মা ও দুই ছেলের লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে রওনা দিয়েছে।