ঢাকা ০৯:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

ট্রাকের নিচে পড়েও অক্ষত, সেতু থেকে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩৭:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ৩৮ বার পড়া হয়েছে

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আত্মহত্যা করতে বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু থেকে মহানন্দা নদীতে ঝাঁপ দিয়েছেন এক কলেজছাত্রী। পরে বিজিবির সহযোগিতায় ওই কলেজছাত্রীকে নদী থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নদীতে ঝাঁপ দেয়ার আগে সেতুর উপরে ট্রাকসহ কয়েকটি যানবাহনের সামনে গিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ওই কলেজছাত্রী।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সদর উপজেলার বারোঘরিয়ায় বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুতে এ ঘটনা ঘটে। বর্তমানে আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। আহত ছাত্রী মুনজিলা হক টুসি (২১) চাঁপাইনবাবগঞ্জ পলেটেকনিক ইন্সটিটিউটের ফুড বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্রী ও সদর উপজেলার বারোঘরিয়া ইউনিয়নের লাহারপুর গ্রামের মোজাম্মেল হকের মেয়ে।

স্থানীয় বাসিন্দা, প্রত্যক্ষদর্শী, উদ্বারকারী, পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ঝাঁপ দেয়ার পর কলেজছাত্রী টুসিকে নদী থেকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা ও উদ্বারকারী ইয়ামিন শুভ ও শামীম আহমেদ জানান, ব্রীজের উপর থেকে নদীতে ঝাঁপ দিয়েছিলেন ওই মেয়ে। এরপর অনেক সময় পেরিয়ে গেলেও কেউই উদ্বারে এগিয়ে যায়নি। পরে ব্রীজ চত্বরে থাকা বিজিবি সদস্যদের অনুরোধে স্থানীয়রা নদীতে নেমে তাকে উদ্বার করে। এসময় বিজিবি সদস্যরা উদ্ধারকাজে সহযোগিতা করে হাসপাতালে ভর্তি করতে এগিয়ে আসে।

প্রত্যক্ষদর্শী তামিম হাসান জানান, ব্রীজের উপর থেকে নদীতে ঝাঁপ দেয়ার আগে ইচ্ছে করেই কয়েকটি গাড়ির সামনে গিয়ে ঝাঁপ দেয় ওই মেয়ে। কিন্তু বৃষ্টি হওয়ায় গাড়িগুলো ধীরগতিতে থাকায় নিয়ন্ত্রণ করে নেয়ার ফলে কোন দূর্ঘটনা ঘটেনি। পরে উপায় না পেয়ে বাধ্য হয়েই নদীতে ঝাঁপ দেয় সে। এই ঘটনা আমিসহ এখানে থাকা অনেকেই দেখেছে।

এবিষয়ে ৫৩ বিজিবি (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) ব্যাটলিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল নাহিদ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, নদীতে এক মেয়ে ঝাঁপ দেয়ার ঘটনাটি বিজিবি চেকপোস্টের কাছাকাছি এলাকায় হয়েছে। কিন্তু কেউই দায়িত্ব নিয়ে উদ্ধারে এগিয়ে না আসায় ও জনগণের অনুরোধে বিজিবি সদস্যরা উদ্ধারে এগিয়ে যায়। মানবিক দায়িত্ববোধ থেকেই বিজিবি সদস্যরা কাজটি করেছে।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. শরিফুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে ভর্তির পর তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

এবিষয়ে কথা বলতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পলেটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ মাসুদুর রহমানের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন জানান, বিষয়টি আমাদের জানা নেই। এই ঘটনায় অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

#
আব্দুল ওয়াহাব
চাঁপাইনবাবগঞ্

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ট্রাকের নিচে পড়েও অক্ষত, সেতু থেকে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

আপডেট সময় : ১২:৩৭:৫৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আত্মহত্যা করতে বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু থেকে মহানন্দা নদীতে ঝাঁপ দিয়েছেন এক কলেজছাত্রী। পরে বিজিবির সহযোগিতায় ওই কলেজছাত্রীকে নদী থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নদীতে ঝাঁপ দেয়ার আগে সেতুর উপরে ট্রাকসহ কয়েকটি যানবাহনের সামনে গিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ওই কলেজছাত্রী।

সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সদর উপজেলার বারোঘরিয়ায় বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুতে এ ঘটনা ঘটে। বর্তমানে আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। আহত ছাত্রী মুনজিলা হক টুসি (২১) চাঁপাইনবাবগঞ্জ পলেটেকনিক ইন্সটিটিউটের ফুড বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্রী ও সদর উপজেলার বারোঘরিয়া ইউনিয়নের লাহারপুর গ্রামের মোজাম্মেল হকের মেয়ে।

স্থানীয় বাসিন্দা, প্রত্যক্ষদর্শী, উদ্বারকারী, পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ঝাঁপ দেয়ার পর কলেজছাত্রী টুসিকে নদী থেকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা ও উদ্বারকারী ইয়ামিন শুভ ও শামীম আহমেদ জানান, ব্রীজের উপর থেকে নদীতে ঝাঁপ দিয়েছিলেন ওই মেয়ে। এরপর অনেক সময় পেরিয়ে গেলেও কেউই উদ্বারে এগিয়ে যায়নি। পরে ব্রীজ চত্বরে থাকা বিজিবি সদস্যদের অনুরোধে স্থানীয়রা নদীতে নেমে তাকে উদ্বার করে। এসময় বিজিবি সদস্যরা উদ্ধারকাজে সহযোগিতা করে হাসপাতালে ভর্তি করতে এগিয়ে আসে।

প্রত্যক্ষদর্শী তামিম হাসান জানান, ব্রীজের উপর থেকে নদীতে ঝাঁপ দেয়ার আগে ইচ্ছে করেই কয়েকটি গাড়ির সামনে গিয়ে ঝাঁপ দেয় ওই মেয়ে। কিন্তু বৃষ্টি হওয়ায় গাড়িগুলো ধীরগতিতে থাকায় নিয়ন্ত্রণ করে নেয়ার ফলে কোন দূর্ঘটনা ঘটেনি। পরে উপায় না পেয়ে বাধ্য হয়েই নদীতে ঝাঁপ দেয় সে। এই ঘটনা আমিসহ এখানে থাকা অনেকেই দেখেছে।

এবিষয়ে ৫৩ বিজিবি (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) ব্যাটলিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল নাহিদ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, নদীতে এক মেয়ে ঝাঁপ দেয়ার ঘটনাটি বিজিবি চেকপোস্টের কাছাকাছি এলাকায় হয়েছে। কিন্তু কেউই দায়িত্ব নিয়ে উদ্ধারে এগিয়ে না আসায় ও জনগণের অনুরোধে বিজিবি সদস্যরা উদ্ধারে এগিয়ে যায়। মানবিক দায়িত্ববোধ থেকেই বিজিবি সদস্যরা কাজটি করেছে।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. শরিফুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে ভর্তির পর তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

এবিষয়ে কথা বলতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পলেটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ মাসুদুর রহমানের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন জানান, বিষয়টি আমাদের জানা নেই। এই ঘটনায় অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

#
আব্দুল ওয়াহাব
চাঁপাইনবাবগঞ্