ঢাকা ০৩:৪৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

চাঁপাইনবাবগঞ্জে কলেজ ছাত্রকে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ: বিজিবির অস্বীকার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪১:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৪ ২৯ বার পড়া হয়েছে

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জে শাহাদাত নামে এক কলেজ ছাত্রকে বিওপিতে ডেকে মাদক দিয়ে ফঁসানোর অভিযোগ উঠেছে বিজিবির বিরুদ্ধে। আজ শুক্রবার দুপুরে জেলা শহরের বিশ্বরোড মোড়ের একটি অফিসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করে ভুক্তভোগির পরিবারের সদস্যরা।

অপরদিকে বিকেলে ৫৯ বিজিবি রহনপুর ব্যাটলিয়ন সদর দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিজিবির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম কিবরিয়া বলেন, গত বুধবার (১০ জানুয়ারী) দুপুরে সোনামসজিদ বিওপি’র নায়েক সেলিম রেজার নেতৃত্বে একটি টহল দল ১৮৪/৪ এস পিলার হতে প্রায় ৯’শ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কয়লাবাড়ী ভেহিক্যাল স্ক্যানার চেকপোষ্ট এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় ১ কেজি ৫৬৫গ্রাম হেরোইন, ১হাজার ৯৮৫পিস ইয়াবা, ১৫ বোতল ফেন্সিডিল ও একটি মোটরসাইকেরসহ শিবগঞ্জ উপজেলঅর আজমতপুর কাগমারী গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায় শাহাদাত হোসেনকে আটক করা হয়। ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক আরও বলেন, শাহাদাত হোসেন একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী এবং তার বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। এছাড়া বিজিবি-বিএসএফ যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় এবং তারা চোরাচালানীদের যে তালিকা বিজিবিকে দেয় সেখানেও শাহাদাত হোসেনের নাম রয়েছে। কিন্তু কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য বিজিবির বিরুদ্ধে মনগড়া অভিযোগ করছে। এসময় তিনি শাহাদাতকে মাদকসহ আটকের ঘটনাটির একটি ভিডিওচিত্র সাংবাদিকদের দেখান তিনি। এর আগে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে শাহাদাতের স্ত্রী মারুফা খাতুন দাবি করে বলেন, তার স্বামীকে বার বার ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে সাজানো মামলা দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। এছাড়া শাহাদাতের ছোট ভাই শামীম আলী বলেন, সীমান্তবর্তী এলাকায় বসতবাড়ি হওয়ার সুবাদে দীর্ঘদিন ধরে বিজিবির সোর্স হিসেবে কাজ করছিল তার ভাই শাহাদাত। কিন্তু সম্প্রতি পড়াশোনা ও দাম্পত্য জীবনের কারণে সে সোর্সের কাজ ছেড়ে দেয়। পরিপ্রেেিক্ষতে তার ভাইকে মাদক মামলায় ফাঁসানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

চাঁপাইনবাবগঞ্জে কলেজ ছাত্রকে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ: বিজিবির অস্বীকার

আপডেট সময় : ০৩:৪১:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২৪

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জে শাহাদাত নামে এক কলেজ ছাত্রকে বিওপিতে ডেকে মাদক দিয়ে ফঁসানোর অভিযোগ উঠেছে বিজিবির বিরুদ্ধে। আজ শুক্রবার দুপুরে জেলা শহরের বিশ্বরোড মোড়ের একটি অফিসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করে ভুক্তভোগির পরিবারের সদস্যরা।

অপরদিকে বিকেলে ৫৯ বিজিবি রহনপুর ব্যাটলিয়ন সদর দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিজিবির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম কিবরিয়া বলেন, গত বুধবার (১০ জানুয়ারী) দুপুরে সোনামসজিদ বিওপি’র নায়েক সেলিম রেজার নেতৃত্বে একটি টহল দল ১৮৪/৪ এস পিলার হতে প্রায় ৯’শ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কয়লাবাড়ী ভেহিক্যাল স্ক্যানার চেকপোষ্ট এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় ১ কেজি ৫৬৫গ্রাম হেরোইন, ১হাজার ৯৮৫পিস ইয়াবা, ১৫ বোতল ফেন্সিডিল ও একটি মোটরসাইকেরসহ শিবগঞ্জ উপজেলঅর আজমতপুর কাগমারী গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায় শাহাদাত হোসেনকে আটক করা হয়। ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক আরও বলেন, শাহাদাত হোসেন একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী এবং তার বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। এছাড়া বিজিবি-বিএসএফ যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় এবং তারা চোরাচালানীদের যে তালিকা বিজিবিকে দেয় সেখানেও শাহাদাত হোসেনের নাম রয়েছে। কিন্তু কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য বিজিবির বিরুদ্ধে মনগড়া অভিযোগ করছে। এসময় তিনি শাহাদাতকে মাদকসহ আটকের ঘটনাটির একটি ভিডিওচিত্র সাংবাদিকদের দেখান তিনি। এর আগে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে শাহাদাতের স্ত্রী মারুফা খাতুন দাবি করে বলেন, তার স্বামীকে বার বার ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে সাজানো মামলা দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। এছাড়া শাহাদাতের ছোট ভাই শামীম আলী বলেন, সীমান্তবর্তী এলাকায় বসতবাড়ি হওয়ার সুবাদে দীর্ঘদিন ধরে বিজিবির সোর্স হিসেবে কাজ করছিল তার ভাই শাহাদাত। কিন্তু সম্প্রতি পড়াশোনা ও দাম্পত্য জীবনের কারণে সে সোর্সের কাজ ছেড়ে দেয়। পরিপ্রেেিক্ষতে তার ভাইকে মাদক মামলায় ফাঁসানো হয়েছে।