ঢাকা ০২:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

কত টাকা পাবে ওয়ানডে বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৫০:১৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১৯৪ বার পড়া হয়েছে

বিশ্বকাপের মতো বড় টুর্নামেন্টগুলোয় অনেকের চোখ থাকে প্রাইজ মানি বা অর্থ পুরস্কারের দিকে। টুর্নামেন্ট চলাকালে কোন দল কত পাচ্ছে, সে খোঁজ নিতে শুরু করেন অনেকেই। এবার বিশ্বকাপ ২০২৩–এর আর্থিক পুরস্কারের পরিমাণ ঘোষণা করেছে আইসিসি। নিজেদের ওয়েবসাইটে সব মিলিয়ে এক কোটি মার্কিন ডলারের এ পুরস্কারের অঙ্ক জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এর মধ্যে শুধু চ্যাম্পিয়ন দলই পাবে ৪০ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৪৪ কোটি টাকা)। আর ১৯ নভেম্বর আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে যারা ফাইনালে হারবে, তাদের পকেটে যাবে চ্যাম্পিয়ন দলের অর্ধেক টাকা। অর্থাৎ রানার্সআপ দলটি পাবে ২০ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২২ কোটি টাকা)।
সেমিফাইনাল থেকে যে দল দুটি বাদ পড়বে, তারা পাবে ৮ লাখ ডলার করে। আর প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়া ৬ দল পাবে ১ লাখ ডলার করে। প্রথম রাউন্ডে সব মিলিয়ে খেলা হবে ৪৫টি ম্যাচ। প্রতিটি ম্যাচে জয়ী দল পাবে ৪০ হাজার ডলার। সব মিলিয়ে ৪৫টি ম্যাচের বিজয়ী দলের জন্য অর্থ পুরস্কার ১৮ লাখ ডলার।
এর আগে গত জুলাইয়ে সমমানের আইসিসি টুর্নামেন্টে ছেলে ও মেয়েদের দল সমান অর্থ পুরস্কার পাবে বলে ঘোষণা দিয়েছিল ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এর মানে ২০২৫ নারী বিশ্বকাপে পুরুষদের সমান অর্থ পুরস্কার পাবে নারীরাও। দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবানে আইসিসির বার্ষিক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
এ ঘোষণার আগপর্যন্ত পুরুষ ও নারীদের অর্থ পুরস্কারে বেশ বড় ধরনের বৈষম্য ছিল। এ বছর হয়ে যাওয়া মেয়েদের বিশ্বকাপে যেমন চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য প্রাইজমানি ছিল ১০ লাখ ইউএস ডলার। অন্যদিকে ২০১৯ সালের পুরুষ ওয়ানডে বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন দল পেয়েছিল এর ৪ গুণ—৪০ লাখ ইউএস ডলার।

সম্প্রতি শেষ হওয়া এশিয়া কাপের সঙ্গে তুলনা করলে ক্রিকেট বিশ্বকাপে আর্থিক লাভটা চোখধাঁধানোই। এশিয়া কাপ ফাইনালের দুই দলের জন্য মোট প্রাইজমানি ছিল ২ লাখ ২৫ হাজার মার্কিন ডলার। এর মধ্যে দেড় লাখ ডলার পেয়েছে ভারত। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১ কোটি ৬৪ লাখ টাকার বেশি।
আর এশিয়া কাপ রানার্সআপ হিসেবে শ্রীলঙ্কা পেয়েছে ৭৫ হাজার মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৮২ লাখ টাকার বেশি। তবে সেটা বিশ্বকাপের চেয়ে অনেক কম। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হারা প্রতিটি দল এশিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের চেয়ে তিন গুণের বেশি অর্থ পাবে।

ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে আগামী ৫ অক্টোবর শুরু হবে এবারের ওয়ানডে বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৭ অক্টোবর।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

কত টাকা পাবে ওয়ানডে বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা

আপডেট সময় : ০৫:৫০:১৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বিশ্বকাপের মতো বড় টুর্নামেন্টগুলোয় অনেকের চোখ থাকে প্রাইজ মানি বা অর্থ পুরস্কারের দিকে। টুর্নামেন্ট চলাকালে কোন দল কত পাচ্ছে, সে খোঁজ নিতে শুরু করেন অনেকেই। এবার বিশ্বকাপ ২০২৩–এর আর্থিক পুরস্কারের পরিমাণ ঘোষণা করেছে আইসিসি। নিজেদের ওয়েবসাইটে সব মিলিয়ে এক কোটি মার্কিন ডলারের এ পুরস্কারের অঙ্ক জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

এর মধ্যে শুধু চ্যাম্পিয়ন দলই পাবে ৪০ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৪৪ কোটি টাকা)। আর ১৯ নভেম্বর আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে যারা ফাইনালে হারবে, তাদের পকেটে যাবে চ্যাম্পিয়ন দলের অর্ধেক টাকা। অর্থাৎ রানার্সআপ দলটি পাবে ২০ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২২ কোটি টাকা)।
সেমিফাইনাল থেকে যে দল দুটি বাদ পড়বে, তারা পাবে ৮ লাখ ডলার করে। আর প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়া ৬ দল পাবে ১ লাখ ডলার করে। প্রথম রাউন্ডে সব মিলিয়ে খেলা হবে ৪৫টি ম্যাচ। প্রতিটি ম্যাচে জয়ী দল পাবে ৪০ হাজার ডলার। সব মিলিয়ে ৪৫টি ম্যাচের বিজয়ী দলের জন্য অর্থ পুরস্কার ১৮ লাখ ডলার।
এর আগে গত জুলাইয়ে সমমানের আইসিসি টুর্নামেন্টে ছেলে ও মেয়েদের দল সমান অর্থ পুরস্কার পাবে বলে ঘোষণা দিয়েছিল ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এর মানে ২০২৫ নারী বিশ্বকাপে পুরুষদের সমান অর্থ পুরস্কার পাবে নারীরাও। দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবানে আইসিসির বার্ষিক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
এ ঘোষণার আগপর্যন্ত পুরুষ ও নারীদের অর্থ পুরস্কারে বেশ বড় ধরনের বৈষম্য ছিল। এ বছর হয়ে যাওয়া মেয়েদের বিশ্বকাপে যেমন চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য প্রাইজমানি ছিল ১০ লাখ ইউএস ডলার। অন্যদিকে ২০১৯ সালের পুরুষ ওয়ানডে বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন দল পেয়েছিল এর ৪ গুণ—৪০ লাখ ইউএস ডলার।

সম্প্রতি শেষ হওয়া এশিয়া কাপের সঙ্গে তুলনা করলে ক্রিকেট বিশ্বকাপে আর্থিক লাভটা চোখধাঁধানোই। এশিয়া কাপ ফাইনালের দুই দলের জন্য মোট প্রাইজমানি ছিল ২ লাখ ২৫ হাজার মার্কিন ডলার। এর মধ্যে দেড় লাখ ডলার পেয়েছে ভারত। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১ কোটি ৬৪ লাখ টাকার বেশি।
আর এশিয়া কাপ রানার্সআপ হিসেবে শ্রীলঙ্কা পেয়েছে ৭৫ হাজার মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৮২ লাখ টাকার বেশি। তবে সেটা বিশ্বকাপের চেয়ে অনেক কম। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হারা প্রতিটি দল এশিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের চেয়ে তিন গুণের বেশি অর্থ পাবে।

ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে আগামী ৫ অক্টোবর শুরু হবে এবারের ওয়ানডে বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৭ অক্টোবর।