ঢাকা ০২:১০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

‘আসছে সপ্তাহে আবারো শুরু হচ্ছে তাপপ্রবাহ’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:২৩:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪ ২০ বার পড়া হয়েছে

আসছে সপ্তাহে আবারো শুরু হচ্ছে তাপপ্রবাহ – নয়া দিগন্তের এই খবরে বলা হচ্ছে এখনকার বৃষ্টিপাতের যে প্রবণতা চলছে তা খুব শিগগিরই হ্রাস পাবে।

অর্থাৎ চলতি মে মাসের বাকি দিনগুলো বাংলাদেশের জন্য ভয়াবহ হতে যাচ্ছে। অবশ্য জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশে সময়মতো পৌঁছে গেলে তখন হয়তো আবারো ঠাণ্ডার পরশ পাওয়া যাবে।

অতীতে কোনো কোনো বছর মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশে পৌঁছাতে জুন মাসের অর্ধেকের বেশি চলে যায়।

খেলায় কেন জুয়ার বিজ্ঞাপন – প্রথম আলোর এই খবরে বলা হচ্ছে টেলিভিশনে খেলা দেখা যেন এখন আর শুধু খেলা দেখাই নয়, সঙ্গে বাজি ধরার চটকদার বিজ্ঞাপন দেখাও! চাইলে খেলা দেখতে দেখতেই কেউ একটা ম্যাচ বা ম্যাচের কোনো অংশ নিয়ে বাজি ধরে ফেলতে পারেন। বাজি মানে জুয়া বা বেটিং।

খেলার মধ্যে বেটিং সাইটের সারোগেট বিজ্ঞাপন দেখানোর উদ্দেশ্য মূলত দর্শকদের জুয়ার প্রলোভনে ফেলা। বিশ্বের অনেক দেশে বেটিং বৈধ হলেও বাংলাদেশের আইনে যেকোনো ধরনের জুয়া ও বাজি নিষিদ্ধ। প্রচারও করা যাবে না। তারপরও দেশে টেলিভিশন চ্যানেল, ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল এবং ওটিটি প্ল্যাটফর্মে বেটিং সাইটের বিজ্ঞাপন আসে।

তবে আসে একটু ভিন্ন উপস্থাপনায়, ছদ্মবেশ ও ছলচাতুরীর মাধ্যমে। যা দেখে যে কেউ বুঝবেন, এসব আসলে বেটিং ওয়েবসাইটেরই প্রচার।

সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের সঙ্গে এসব বেটিং সাইটের চলে লুকোচুরি খেলা। আজ একটা বন্ধ করা হয় তো কাল আরও কয়েকটা চলে আসে। এভাবে অনলাইন বেটিং সমাজে ছড়িয়ে পড়ছে অনেকটা মাদকের নেশার মতো।

অনলাইনে জুয়ার বিস্তার নিয়ে গত বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। জুয়ার কারণে নানা সামাজিক সমস্যার কথা উল্লেখ করে সংস্থাটি বলেছে, অনলাইন জুয়ার মাধ্যমে বিপুল অঙ্কের টাকা পাচার হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

‘আসছে সপ্তাহে আবারো শুরু হচ্ছে তাপপ্রবাহ’

আপডেট সময় : ১২:২৩:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪

আসছে সপ্তাহে আবারো শুরু হচ্ছে তাপপ্রবাহ – নয়া দিগন্তের এই খবরে বলা হচ্ছে এখনকার বৃষ্টিপাতের যে প্রবণতা চলছে তা খুব শিগগিরই হ্রাস পাবে।

অর্থাৎ চলতি মে মাসের বাকি দিনগুলো বাংলাদেশের জন্য ভয়াবহ হতে যাচ্ছে। অবশ্য জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশে সময়মতো পৌঁছে গেলে তখন হয়তো আবারো ঠাণ্ডার পরশ পাওয়া যাবে।

অতীতে কোনো কোনো বছর মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশে পৌঁছাতে জুন মাসের অর্ধেকের বেশি চলে যায়।

খেলায় কেন জুয়ার বিজ্ঞাপন – প্রথম আলোর এই খবরে বলা হচ্ছে টেলিভিশনে খেলা দেখা যেন এখন আর শুধু খেলা দেখাই নয়, সঙ্গে বাজি ধরার চটকদার বিজ্ঞাপন দেখাও! চাইলে খেলা দেখতে দেখতেই কেউ একটা ম্যাচ বা ম্যাচের কোনো অংশ নিয়ে বাজি ধরে ফেলতে পারেন। বাজি মানে জুয়া বা বেটিং।

খেলার মধ্যে বেটিং সাইটের সারোগেট বিজ্ঞাপন দেখানোর উদ্দেশ্য মূলত দর্শকদের জুয়ার প্রলোভনে ফেলা। বিশ্বের অনেক দেশে বেটিং বৈধ হলেও বাংলাদেশের আইনে যেকোনো ধরনের জুয়া ও বাজি নিষিদ্ধ। প্রচারও করা যাবে না। তারপরও দেশে টেলিভিশন চ্যানেল, ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল এবং ওটিটি প্ল্যাটফর্মে বেটিং সাইটের বিজ্ঞাপন আসে।

তবে আসে একটু ভিন্ন উপস্থাপনায়, ছদ্মবেশ ও ছলচাতুরীর মাধ্যমে। যা দেখে যে কেউ বুঝবেন, এসব আসলে বেটিং ওয়েবসাইটেরই প্রচার।

সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের সঙ্গে এসব বেটিং সাইটের চলে লুকোচুরি খেলা। আজ একটা বন্ধ করা হয় তো কাল আরও কয়েকটা চলে আসে। এভাবে অনলাইন বেটিং সমাজে ছড়িয়ে পড়ছে অনেকটা মাদকের নেশার মতো।

অনলাইনে জুয়ার বিস্তার নিয়ে গত বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। জুয়ার কারণে নানা সামাজিক সমস্যার কথা উল্লেখ করে সংস্থাটি বলেছে, অনলাইন জুয়ার মাধ্যমে বিপুল অঙ্কের টাকা পাচার হয়।