ঢাকা ০২:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য গ্রেপ্তার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৩৩:২৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ৭৪ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর ভাটারা এলাকা থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য অভিযোগে এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের বিশেষায়িত অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ)। মোহাম্মদ আরিফ (২৩) নামের ওই তরুণকে বুধবার গ্রেপ্তার করা হয়। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেছেন, আরিফের কাছ থেকে দাওয়াতি কার্যক্রমে ব্যবহৃত দুটি মুঠোফোন, একটি কম্পিউটারের সিপিইউ, একটি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, একটি পাসপোর্ট ও বিভিন্ন তথ্য–প্রমাণ জব্দ করা হয়েছে।
এটিইউ সূত্র জানায়, গোপন খবর ও তথ্যপ্রযুক্তির নজরদারির সহায়তায় আরিফের অবস্থান শনাক্ত করে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি গাজীপুরের টঙ্গী থানার চেয়ারম্যানবাড়ি এলাকায় থাকেন। তাঁর বাড়ি কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে।
এটিইউর পুলিশ সুপার (অপারেশনস, মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস উইং) মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন বলেন, আরিফ কথিত ইসলামি বক্তা জসীম উদ্দিন রাহমানী ও তামিম আল-আদনানীদের ওয়াজ শুনে উদ্বুদ্ধ হয়ে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সমর্থক ও সদস্য হন। তিনি সদস্য সংগ্রহের পাশাপাশি সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য প্রশিক্ষণের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।
এটিইউ কর্মকর্তা ছানোয়ার হোসেন আরও বলেন, মোহাম্মদ আরিফ ও তাঁর সহযোগী পলাতক ইয়াকুব হুজুর, ওমর ফারুক, জাহাদ খানসহ অজ্ঞাতনামা সহযোগীদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করা হয়েছে ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য গ্রেপ্তার

আপডেট সময় : ০২:৩৩:২৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

রাজধানীর ভাটারা এলাকা থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য অভিযোগে এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের বিশেষায়িত অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ)। মোহাম্মদ আরিফ (২৩) নামের ওই তরুণকে বুধবার গ্রেপ্তার করা হয়। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেছেন, আরিফের কাছ থেকে দাওয়াতি কার্যক্রমে ব্যবহৃত দুটি মুঠোফোন, একটি কম্পিউটারের সিপিইউ, একটি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, একটি পাসপোর্ট ও বিভিন্ন তথ্য–প্রমাণ জব্দ করা হয়েছে।
এটিইউ সূত্র জানায়, গোপন খবর ও তথ্যপ্রযুক্তির নজরদারির সহায়তায় আরিফের অবস্থান শনাক্ত করে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি গাজীপুরের টঙ্গী থানার চেয়ারম্যানবাড়ি এলাকায় থাকেন। তাঁর বাড়ি কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে।
এটিইউর পুলিশ সুপার (অপারেশনস, মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস উইং) মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন বলেন, আরিফ কথিত ইসলামি বক্তা জসীম উদ্দিন রাহমানী ও তামিম আল-আদনানীদের ওয়াজ শুনে উদ্বুদ্ধ হয়ে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সমর্থক ও সদস্য হন। তিনি সদস্য সংগ্রহের পাশাপাশি সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য প্রশিক্ষণের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।
এটিইউ কর্মকর্তা ছানোয়ার হোসেন আরও বলেন, মোহাম্মদ আরিফ ও তাঁর সহযোগী পলাতক ইয়াকুব হুজুর, ওমর ফারুক, জাহাদ খানসহ অজ্ঞাতনামা সহযোগীদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করা হয়েছে ।