ঢাকা ১২:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি ::
আমাদের নিউজপোর্টালে আপনাকে স্বাগতম... সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

আইসিএসবি ৪৩টি প্রতিষ্ঠানকে কর্পোরেট গভর্নেন্স এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড দিয়েছে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১২:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২৩ ৬৮ বার পড়া হয়েছে

কর্পোরেট গভর্নেন্স প্রতিষ্ঠায় উৎকর্ষতা সাধন এবং কোম্পানির সামগ্রিক ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে ৪৩টি প্রতিষ্ঠানকে কর্পোরেট গভর্নেন্স এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেছে ইনস্টিটিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি)। শনিবার রাতে রাজধানীর রেডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেলে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আইসিএসবি।

আইসিএসবির নির্ধারিত মানদণ্ড অনুযায়ী ২০২২ সালে কোম্পানিগুলোর সাফল্যের ভিত্তিতে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। এবারের আয়োজনের মূল প্রতিপাদ্য ছিল ‘প্রমোটিং গভর্নিং এক্সিলেন্স’। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।
ডিএসই এবং সিএসই তালিকাভুক্ত ১৪টি ক্যাটাগরিতে বিজয়ী ৪৩টি কোম্পানিকে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। গোল্ড, সিলভার ও ব্রোঞ্জ এই তিনটি ক্যাটাগরিতে কোম্পানিগুলোকে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, ‘এই পুরস্কার শুধু একটি স্মারক নয়; আমাদের দেশে কর্পোরেট শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের একটি মান। গত কয়েক দশকে আইসিএসবি কর্পোরেট গভর্নেন্সের ক্ষেত্রে একটি বিশ্বস্ত নাম হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে যা সত্যিই প্রশংসনীয়।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের (সিএমএসএফ) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, ‘এই আয়োজনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো কর্পোরেট ব্যবস্থাপনায় সুশাসন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করা।’
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, ‘একটি কোম্পানির সঠিক পরিচালনা নিশ্চিত করতে কোম্পানি সচিবদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আইসিএসবি ব্যবসায়িক খাতে চার্টার্ড সেক্রেটারিদের সক্ষমতা ও সৃজনশীলতা বাড়াতে কাজ করছে।’

আইসিএসবির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আসাদ উল্লাহ বাণিজ্যমন্ত্রী এবং বাণিজ্য সচিবকে বাংলাদেশে আইসিএসবি পেশার বিকাশ এবং আরজেএসসিতে নিবন্ধিত ৩ লাখের বেশি কোম্পানিকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য কোম্পানি আইন সংশোধনী বিল, ২০২৩-এ আইসিএসবি পেশাকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য অনুরোধ করেন।
আইসিএসবির কর্পোরেট গভর্নেন্স কমিটির চেয়ারম্যান এম নুরুল আলম বলেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য হল সুশাসনের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ কোম্পানি এবং তাদের ব্যবস্থাপনাকে স্বীকৃতি প্রদান করা।’

আইসিএসবি ইনস্টিটিটিউটের পক্ষ থেকে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানান ট্রেজারার মোহাম্মাদ আবদুল্লাহ আল মামুন। অনুষ্ঠানে গণ্যমান্য ব্যক্তি, বিভিন্ন পেশাজীবী, দেশের নেতৃস্থানীয় কর্পোরেট হাউসের চেয়ারম্যান, পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, ইনস্টিটিউটের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপলোডকারীর তথ্য

আইসিএসবি ৪৩টি প্রতিষ্ঠানকে কর্পোরেট গভর্নেন্স এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড দিয়েছে

আপডেট সময় : ০৯:১২:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২৩

কর্পোরেট গভর্নেন্স প্রতিষ্ঠায় উৎকর্ষতা সাধন এবং কোম্পানির সামগ্রিক ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে ৪৩টি প্রতিষ্ঠানকে কর্পোরেট গভর্নেন্স এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেছে ইনস্টিটিটিউট অব চার্টার্ড সেক্রেটারিজ অব বাংলাদেশ (আইসিএসবি)। শনিবার রাতে রাজধানীর রেডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেলে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আইসিএসবি।

আইসিএসবির নির্ধারিত মানদণ্ড অনুযায়ী ২০২২ সালে কোম্পানিগুলোর সাফল্যের ভিত্তিতে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। এবারের আয়োজনের মূল প্রতিপাদ্য ছিল ‘প্রমোটিং গভর্নিং এক্সিলেন্স’। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।
ডিএসই এবং সিএসই তালিকাভুক্ত ১৪টি ক্যাটাগরিতে বিজয়ী ৪৩টি কোম্পানিকে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। গোল্ড, সিলভার ও ব্রোঞ্জ এই তিনটি ক্যাটাগরিতে কোম্পানিগুলোকে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, ‘এই পুরস্কার শুধু একটি স্মারক নয়; আমাদের দেশে কর্পোরেট শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের একটি মান। গত কয়েক দশকে আইসিএসবি কর্পোরেট গভর্নেন্সের ক্ষেত্রে একটি বিশ্বস্ত নাম হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে যা সত্যিই প্রশংসনীয়।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের (সিএমএসএফ) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, ‘এই আয়োজনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো কর্পোরেট ব্যবস্থাপনায় সুশাসন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করা।’
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, ‘একটি কোম্পানির সঠিক পরিচালনা নিশ্চিত করতে কোম্পানি সচিবদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আইসিএসবি ব্যবসায়িক খাতে চার্টার্ড সেক্রেটারিদের সক্ষমতা ও সৃজনশীলতা বাড়াতে কাজ করছে।’

আইসিএসবির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আসাদ উল্লাহ বাণিজ্যমন্ত্রী এবং বাণিজ্য সচিবকে বাংলাদেশে আইসিএসবি পেশার বিকাশ এবং আরজেএসসিতে নিবন্ধিত ৩ লাখের বেশি কোম্পানিকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য কোম্পানি আইন সংশোধনী বিল, ২০২৩-এ আইসিএসবি পেশাকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য অনুরোধ করেন।
আইসিএসবির কর্পোরেট গভর্নেন্স কমিটির চেয়ারম্যান এম নুরুল আলম বলেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য হল সুশাসনের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ কোম্পানি এবং তাদের ব্যবস্থাপনাকে স্বীকৃতি প্রদান করা।’

আইসিএসবি ইনস্টিটিটিউটের পক্ষ থেকে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানান ট্রেজারার মোহাম্মাদ আবদুল্লাহ আল মামুন। অনুষ্ঠানে গণ্যমান্য ব্যক্তি, বিভিন্ন পেশাজীবী, দেশের নেতৃস্থানীয় কর্পোরেট হাউসের চেয়ারম্যান, পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, ইনস্টিটিউটের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।