ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে চাকরি হারালেন ম'সজিদের পেশ ই'মাম

করো'নাভাই'রাসে আ'ক্রান্ত হয়ে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্ম'দ নাসিম ও ধ'র্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্ম'দ আব্দুল্লাহর মৃ'ত্যু নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে ম'সজিদের এক ই'মামকে।

চাকরিচ্যুত হাফেজ বিল্লাল হোসেন কুষ্টিয়ার খোকসায় উপজে'লার কমলাপুর মোল্লাপাড়া জামে ম'সজিদের পেশ ই'মাম ছিলেন।

সোমবার (১৫ জুন) সকালে হাফেজ বিল্লাল হোসেনকে চাকরিচ্যুত করে ম'সজিদের পরিচালনা কমিটি। বিকেলে চাকরিচ্যুতির ঘটনাটি সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেন ম'সজিদটির পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুন্সী আরিফুল কবীর।

ম'সজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুন্সী আরিফুল কবীর বলেন, ফেসবুকে দেশের দুজন মন্ত্রীর মৃ'ত্যু নিয়ে পোস্ট দিয়েছিলেন ই'মাম সাহেব। পরে কে বা কারা সেটি থা'নায় জানালে ওসি সাহেব তাকে সতর্ক করে দিয়ে বিষয়টি ম'সজিদ পরিচালনা কমিটির উপর ছেড়ে দেন। তারপর সব কিছু বিচার-বিশ্লেষণ করে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

এ ব্যাপারে হাফেজ বিল্লাল হোসেন বলেন, আমি ফেসবুকে একটি পোস্ট দিলে আমাকে থা'নায় ডা'কা হয়। থা'না থেকে আমাকে গালিগালাজ করে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে ওসি সাহেব এমন পোস্ট ভবিষ্যতে আর না দেয়ার নির্দেশ দেন।

পোস্টটিতে মৃ'ত ব্যক্তিকে নিয়ে কটুক্তি করা হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আসলে আম'রা সাধারণ মানুষ। আমাদের বাক-স্বাধীনতা আছে। এটি তার বি'রুদ্ধে চক্রান্ত বলে তিনি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে খোকসা থা'না পু'লিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহুরুল আলম বলেন, আমাদের কাছে কেউ অ'ভিযোগ দেয়নি। আম'রা তাকে (ই'মাম) থা'নায় ডেকে তার কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিয়েছে। ভবিষ্যতে যাতে তিনি আর এ ধরনের কাজ না করেন। চাকরি থেকে বরখাস্ত করার বিষয়টি আমা'র কোনো বিষয় নয়, এটা ম'সজিদ কমিটির সিদ্ধান্ত।

আল-মামুন সাগর/এমএএস/পিআর

করো'নাভাই'রাসে আ'ক্রান্ত হয়ে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্ম'দ নাসিম ও ধ'র্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্ম'দ আব্দুল্লাহর মৃ'ত্যু নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে ম'সজিদের এক ই'মামকে।

চাকরিচ্যুত হাফেজ বিল্লাল হোসেন কুষ্টিয়ার খোকসায় উপজে'লার কমলাপুর মোল্লাপাড়া জামে ম'সজিদের পেশ ই'মাম ছিলেন।

সোমবার (১৫ জুন) সকালে হাফেজ বিল্লাল হোসেনকে চাকরিচ্যুত করে ম'সজিদের পরিচালনা কমিটি। বিকেলে চাকরিচ্যুতির ঘটনাটি সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেন ম'সজিদটির পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুন্সী আরিফুল কবীর।

ম'সজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুন্সী আরিফুল কবীর বলেন, ফেসবুকে দেশের দুজন মন্ত্রীর মৃ'ত্যু নিয়ে পোস্ট দিয়েছিলেন ই'মাম সাহেব। পরে কে বা কারা সেটি থা'নায় জানালে ওসি সাহেব তাকে সতর্ক করে দিয়ে বিষয়টি ম'সজিদ পরিচালনা কমিটির উপর ছেড়ে দেন। তারপর সব কিছু বিচার-বিশ্লেষণ করে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

এ ব্যাপারে হাফেজ বিল্লাল হোসেন বলেন, আমি ফেসবুকে একটি পোস্ট দিলে আমাকে থা'নায় ডা'কা হয়। থা'না থেকে আমাকে গালিগালাজ করে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে ওসি সাহেব এমন পোস্ট ভবিষ্যতে আর না দেয়ার নির্দেশ দেন।

পোস্টটিতে মৃ'ত ব্যক্তিকে নিয়ে কটুক্তি করা হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আসলে আম'রা সাধারণ মানুষ। আমাদের বাক-স্বাধীনতা আছে। এটি তার বি'রুদ্ধে চক্রান্ত বলে তিনি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে খোকসা থা'না পু'লিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহুরুল আলম বলেন, আমাদের কাছে কেউ অ'ভিযোগ দেয়নি। আম'রা তাকে (ই'মাম) থা'নায় ডেকে তার কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিয়েছে। ভবিষ্যতে যাতে তিনি আর এ ধরনের কাজ না করেন। চাকরি থেকে বরখাস্ত করার বিষয়টি আমা'র কোনো বিষয় নয়, এটা ম'সজিদ কমিটির সিদ্ধান্ত।

Back to top button