নামাজরত মাকে কুড়াল দিয়ে কু‌‌'পিয়ে হ'ত্যা করল ছেলে

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজে'লার উম'র মজিদ ইউপির পান্থাবাড়ি গ্রামে জুমা চলার সময় নিজ ঘরে নামাজরত আপন মাকে কুড়াল দিয়ে কু‌‌'পিয়ে হ'ত্যা করেছে ছেলে মন্তাজুল মিয়া।

এ ঘটনার পর এলাকাবাসী ঘা'তক ছেলে মন্তাজুলকে আ'ট'ক করে বেঁধে পু'লিশে খবর দেয়। পরে পু'লিশ এসে তাকে আ'ট'ক করে।

নি'হত মা মিনি বেগম পান্থাবাড়ি গ্রামের সোলায়মান আলীর স্ত্রী'।

এলাকাবাসী জানান, জুমা'র নামাজের সময় মিনি বেগম তার নিজের ঘরে নামাজ পড়তে বসে। এ সময় তার মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে মন্তাজুল ঘরে থাকা কুড়াল দিয়ে মায়ের গলায় জোড়ে কোপ মা'রে। এতে মা মিনি আক্তারের গলা কে'টে ঘটনাস্থলেই নি'হত হয়।

মায়ের হ'ত্যাকারী ছেলে

মায়ের হ'ত্যাকারী ছেলে

তারা আরো জানান, মন্তাজুল কয়েক বছর আগে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন। অনেক চিকিৎসার পর বর্তমানে তাকে বাড়িতে বেঁধে রেখে কবিরাজি চিকিৎসা করাচ্ছিলেন তার পরিবারের সদস্যরা। ঘটনার সময় তার হাত-পায়ের বাঁধন খোলা ছিল।

এ ব্যাপারে রাজারহাট থানার ওসি কৃঞ্চ কুমা'র সরকার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পু'লিশ। মাকে খু'নের অ'প'রাধে ছেলে মন্তাজুল মিয়াকে আ'ট'ক করা হয়েছে।

ওসি আরো বলেন, এলাকাবাসী ও তার পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছি মন্তাজুল মানসিক রোগী ছিল। ঘটনা ত'দন্ত করা হচ্ছে। ঘা'তক ছেলের বি'রুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।